• আজ বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২১ অক্টোবর, ২০২১ ৷

সিরাজদিখানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনিয়ম : ক্ষিপ্ত অভিভাবকরা


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ২৬, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

মোঃ রুবেল ইসলাম, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজদিখান উপজেলার বয়রাগাদি ইউনিয়নের গোবরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শ্রেণি কক্ষে প্রাইভেট পড়ানো, ক্লাশে মোবাইলে কথা বলা ও ক্লাশের প্রতি অমনোযোগিতার অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠছে অভিভাবকরা।

khipto-ovibabok

জানা যায়, প্রধান শিক্ষিকা জাকিয়া সুলতানা পলি ও সহকারি শিক্ষিকা আসমা আক্তার সকাল থেকে শ্রেণি কক্ষে ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের বাধ্যতামূলক প্রাইভেট পড়ান। কেউ তাদের কাছে প্রাইভেট পড়তে নারাজ হলে তাকে ফেল করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

২য় শেণীর ছামিয়া জানায়, আমি আসমা ম্যাডামের কাছে প্রাইভেট পড়ি নাই তাই আমাকে ফেল করানো হয়েছে। একই অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীদের অনেক অভিভাবক। ৩য় শ্রেণির ছাত্র সৈকতের বাবা রুহুল আমিন জানান, মাস্টাররা ছাত্র-ছাত্রীদের পড়া দিয়ে অন্য রুমে গিয়ে গল্প করেন, ছাত্র ছাত্রীদের পড়ানোর দিকে তাদের মনযোগ নাই। ক্লাশে বসে উকুন মারে। তাদের যখন মন চায় ছুটি দিয়ে দেয়। ছেলেটাকে অন্য স্কুলে নিয়ে যেতাম কিন্তু কাছে কোন স্কুল নাই।

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, ক্লাশ চলাকালীন মোবাইল ফোনে প্রেম করার ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে তাদেরকে সতর্ক করা হলেও তারা শোধরায়নি। এছাড়া তারা প্রায়ই ক্লাশ রুমের জানালা-দড়জা খোলা রেখে, বাতি জালিয়ে ও ফ্যান চালু রেখে চলে যায়। ছাত্রছাত্রীদের জাতীয় সঙ্গিত ও শরীর চর্চা করানো হয় না। আবার স্কুল ছুটি শেষে জাতীয় পতাকা না নামিয়ে তারা চলে যান। আমরা আগামি শনিবার ফাইনাল সিদ্ধান্তের জন্য মিটিং ডেকেছি।

স্থানীয় সাবেক মহিলা ইউপি সদস্য নিলুফা ইয়াসমিন সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, বাচ্চাদের উপবৃত্তির টাকা প্রাইভেটের বিল দিয়েই শেষ হয়ে যায়। শিক্ষকরা ক্লাশের পাঠে মনোযোগি হয়না। তারা স্থানীয় হওয়ায় ক্লাশ চালু অবস্থায় বাসায় চলে যায় আবার ছুটির আগে চলে আসে।

প্রধান শিক্ষক জাকিয়া সুলতানা পলি সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, আমি আর প্রাইভেট পড়াব না। দয়া করে আপনারা এ ব্যাপারে কিছু লিখবেন না। অন্যান্য বিষয় সব উপজেলা শিক্ষা অফিসার জানেন।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার বেলায়েত হোসেন সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, ম্যানেজিং কমিটির কেউ আমাকে এ বিষয় জানায়নি। এ ধরনের অনিয়ম হলে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন