সংবাদ শিরোনাম
‘আমি এমন একজনের ভোট পেয়েছি, যার নাম ডোনাল্ড ট্রাম্প’ | বার্সেলোনাকে হেসে খেলে হারিয়ে রিয়ালের এল ক্লাসিকো জয় | ‘আমি ক্ষমতায় থাকি বা না থাকি, বিরোধী দলের নেতারা ক্ষমতায় ফিরবে না’- ইমরান | বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলো প্রেমিকা! | গৃহকর্মী সাদিয়ার বাড়িতে শোকের মাতম, জড়িতদের ফাঁসির দাবি | তেঁতুলিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন ২ জন | পঙ্গপালের আক্রমনে দিশেহারা ইথিওপিয়া, খাদ্য সংকট চরমে! | ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের মানসিক পরীক্ষা করা দরকার: এরদোগান | চুল কেটে সিনেমা থেকে বাদ পড়লেন বাপ্পি চৌধুরী! | মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ: অভিযুক্ত মাদ্রাসা সুপারকে আটক করেছে জনতা |
  • আজ ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘হাতে আছে মাত্র দুই বছর, এখন থেকেই নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে হবে’

৯:১৪ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, জুলাই ২৬, ২০১৬ জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বরঃ নিজ দলীয় সাংসদদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিন। আড়াই বছর চলে গেছে। হাতে আছে মাত্র দুই বছর। বাকি ছয় মাস যাবে বলতে বলতেই। সেজন্য আপনারা নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরুন। এখন থেকেই নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে হবে।’

দলীয় এমপিদের নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে ইসলামের সঠিক প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে জঙ্গিবাদ দমন ও জনসাধারণকে সচেতন করার নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইসলামকে রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব উল্লেখ করে এমপিদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, ‘নিজ নিজ এলাকায় যান এবং মানুষের মাঝে ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা ছড়িয়ে দিন। ’

সংসদ ভবনে সরকারি দলের সভাকক্ষে মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। বৈঠক শেষে একাধিক সংসদ সদস্যের সাথে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মহিলা আসনে যেসব এমপি আছেন, তাদের নিজ নির্বাচনী এলাকা তৈরি করার দরকার নেই। তাদের আমি মনোনয়ন দেবো না। আপনাদের যেজন্য এমপি বানিয়েছি সেই সংগঠন গোছানোর কাজ কর“ন। নিজে নিজে এমপি প্রার্থী হওয়া যাবে না, মনোনয়ন দেবো আমি। কে মনোনয়ন পাবে সেটা আমি দেখবো। আপনারা সংগঠনের জন্য কাজ করুন।

pmপ্রধানমন্ত্রী এমপিদের দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, ‘আপনারা কোনো ধরনের চিন্তা করবেন না। আমরা এর আগেও অনেক ধরনের সমস্যার সমাধান করেছি। এখনও করব। জঙ্গিবাদ কোনো সঙ্কট না। আমরা এর মোকাবিলা করব।’

হাসিনা আরো বলেন, ‘সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক সমস্যা। সারা বিশ্বজুড়েই এখন তা ঘটছে। তবে বিশ্বের অন্যান্য দেশ তা দমন করতে না পারলেও আমরা পারব। কারণ আমাদের দলীয় লোকজন আছে। আছে শক্তিশালী সংগঠন।’

জানা যায়, বৈঠকে একজন সংসদ সদস্য বলেন, সব পুলিশ আমাদের আপন না। তাই আমাদের সর্তক থাকতে হবে। তার এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কল্যাণপুরের জঙ্গি দমন তো পুলিশই করেছে। তারা ভালোভাবেই অভিযান পরিচালনা করেছে এবং সফল হয়েছে। আমাদের বিশেষায়িত সোয়াত বাহিনী ও পুলিশকে আমি নির্দেশ দিয়েছিলাম রাতে অভিযান না চালিয়ে দিনের বেলায় চালাতে, যাতে সাধারণ মানুষের কোনো সমস্যা না হয়।

বৈঠকে শামীম ওসমান জঙ্গিবাদ বিরোধী বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে নিহত পুলিশ সদস্যদের নামে স্থাপনা নির্মাণের প্রস্তাব রাখেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ভূয়সী প্রশংসা করেন। আর গণমাধ্যমগুলো বর্তমান জঙ্গি দমনে যে ধরনের কার্যক্রম ও সরকারি নিদের্শনা মেনে চলছে তাতে প্রধানমন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করেন।

তারেক রহমানের সাজা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী এমপিদের জানান, এখানে আমাদের করার কিছু ছিল না। এটাই প্রথম মামলা যেখানে এফবিআই এসে সাক্ষ্য দিয়ে গেছে। তারেক রহমানকে নিয়ে নিম্ন আদালত যে রায় দিয়েছিল তা প্রশ্নবিদ্ধ ছিল।

তিনি বলেন, ‘উচ্চ আদালতে আমরা হস্তক্ষেপ করিনি। তার টাকা পাচার প্রমাণিত।’

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাবেক প্রধান হুইপ উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ, হুইপ আতিকুর রহমান আতিক ও শামীম ওসমান ফজিতুলনেছা ইন্দিরা।