নিখোঁজ সেই সেনা সদস্য ও ইমামকে থানায় সোপর্দ


❏ মঙ্গলবার, জুলাই ২৬, ২০১৬ আলোচিত, ফিচার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের সোনালীপাড়ার ‘জঙ্গি আস্তানা’ খ্যাত মেসের মালিক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য কাওসার আলী ও পাশের মসজিদের ইমাম রোকনুজ্জামানকে গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলায় সম্পৃক্ততার সন্দেহে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়র (র‌্যাব) আটক করেছে।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব এ তথ্য জানায়। ঝিনাইদহ র‌্যাবের কমান্ডিং অফিসার মেজর মুনির জানান, ওই দুইজনকে শহরের পাগলা কানাই মোড় থেকে আটক করে ঝিনাইদহ সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শহরের পাগলাকানাই এলাকায় সন্দেহজনক ঘোরাফেরা করতে দেখে কাওসার আলী ও পার্শ্ববর্তী মসজিদের ইমাম রোকনুজ্জামানকে আটক করা হয়।

mes malikআটককৃতরা গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার সাথে সম্পৃক্ততা থাকতে পারে সন্দেহে তাদেরকে ক্যাম্পে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে সন্ধ্যায় তাদেরকে ঝিনাইদহ সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। নিহত জঙ্গি নিবরাস ইসলাম ও আবির হোসেন ওই মেসে থাকতো বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে তারা।

এদিকে, সাবেক সেনা সদস্য কাউছার আলী ও মসজিদের ইমাম রোকনুজ্জামানকে থানায় সোপর্দ করা হলেও বিনছার আলী, বেনজির আলী ও হাফেজ আব্দুর রব এখনো নিখোঁজ রয়েছে। তাদের কোনো সন্ধান না মেলায় পরিবারের সদস্যদের মাঝেও আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ র‌্যাবের কমান্ডিং অফিসার মেজর মুনির জানান, বাকী নিখোঁজ তিনজনের উদ্ধারেও র‌্যাব চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।