• আজ বুধবার, ৪ কার্তিক, ১৪২৮ ৷ ২০ অক্টোবর, ২০২১ ৷

সবজি বিক্রি করে সফল ফিরোজা বেগম


❏ বুধবার, জুলাই ২৭, ২০১৬ দেশের খবর, বরিশাল

জাহিদ রিপন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি: কলাপাড়ার ফিরোজা বেগম সবজি বিক্রি করে একটু হলেও খুজে পেয়েছেন স্বাচ্ছন্দ্য। কিন্তু তার জীবনের শুরুটা ছিলনা সুখ আর স্বাচ্ছন্দ্যময়। দারিদ্রতার কারনে বাল্য বিয়ের খড়গ মাথা পেতে নিতে হয়েছিল। ভেবে ছিলেন সুখ খুঁজে পাবেন স্বামীর সংসারে। স্বামীর সংসারেও এসে দেখেন দারিদ্রতার লাগামহীন টানপোড়ন। একটা সময় ভাগ্যেও পরিহাস বলে মেনে নেন সব কিছু। দিনদিন বাড়তে থাকে পরিবারের সদস্য সংখ্যা। দারিদ্রতা অভাব যেন জেকে বসে তার জীবনে। সারাদিনের কর্মক্লান্ত স্বামীর সামন্য উপার্জনে খেয়ে না খেয়ে থাকার যন্ত্রনা নিয়ে জীবন চলছিল। এনিয়ে মনে কষ্ট কম ছিলনা।

jobiji-bikreta

স্বামী এবং পরিবারের একটু সুখের আশায় কিছু একটা করার সিদ্বান্ত থেকে নেমে পড়েন সবজি বিক্রি করার জন্য। কিন্তু এ পেশায় আশার প্রধান প্রতিবন্ধকতা ছিল পুঁজি। শুরুর দিকে মহাজনদের কাছ থেকে বাকিতে পন্য কিনে সারাদিন বিক্রি করে স্বান্দ্যায় তার দায় শোধ করতেন। বাকীতে পন্য ক্রয়ের জন্য মহাজনরা মূল্য একটু বেশি রাখত। তবুও যা হত তাতেই বেশ খুশী ছিল ফিরোজা। দিনদিন তার বেচাবিক্রিও বাড়তে থাকে।

ফিরোজা বেগমের ভাবনায় আসে যদি পুঁজি থাকত তবে লাভটা বেশি হত। প্রতিবেশির সহায়তায় যোগাযোগ করেন মুসলিম এইড কলাপাড়া শাখায়। সেখান থেকে সহজ শর্তে বিনা সুদে দশ হাজার টাকা ঋন গ্রহন করেন। নিজের পুঁজিতে শুরু করেন নতুন করে জীবন। ফিরোজা বেগম জানান, এখন তার লাভের পরিমান ভাল থাকছে। না খেয়ে দিন কাটাতে হয়না। হাসিমুখে জানান, তিন মেয়েকেই বিয়ে দিয়েছেন ভাল বর দেখে। একমাত্র ছেলে পড়ালেখার পাশাপাশি তাকে সাহায্য করছে। তিনি বেশ সুখেই আছেন।

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন