সংবাদ শিরোনাম

সালথায় তান্ডব: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান পাঁচ দিনের রিমান্ডেকরোনায় একদিনে আরও ৯৮ জনের মৃত্যুনিউমাকের্ট থেকে হেফাজতের আরও এক নেতা গ্রেফতারমেলান্দহে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, ড্রেজার মেশিনে আগুন দিয়ে ধ্বংসউৎপাদন বাড়াচ্ছি, শিগগিরই বাংলাদেশ টিকা পাবে: দোরাইস্বামীশরীয়তপু‌রে পা‌রিবা‌রিক দ্ব‌ন্দে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে স্বামীর আত্মহত্যামাগুরায় কৃষি পণ্য উৎপাদনে জনপ্রিয় হচ্ছে ‘চাঁদের হাট’ সমন্বিত কৃষি খামার প্রকল্পহেফাজতের যুগ্ম-মহাসচিব খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ূবী গ্রেপ্তারকরোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রীপিরোজপুরে একমাসে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত ১৮০০ জন

  • আজ বৃহস্পতিবার। গ্রীষ্মকাল, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সন্ধ্যা ৬:০২মিঃ

গাইবান্ধায় সোনাইল বাঁধ ভেঙে নতুন করে ১০ গ্রাম প্লাবিত

⏱ | রবিবার, জুলাই ৩১, ২০১৬ 📁 দেশের খবর, রংপুর

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধা সদর উপজেলার সোনাইল বাঁধ ভেঙে ১০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে নতুন করে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে ১০ সহস্রাধিক মানুষ। আজ রবিবার দুপুরে উপজেলার বাদিয়াখালি ইউনিয়নের চুনিয়াকান্দি এলাকায় ঘাঘট নদীর পানির চাপে বাঁধের ১০০ মিটার ভেঙে যায়।

gram-bonna

বাদিয়াখালি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সাফায়েতুল ইসলাম পাভেল সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, এক সপ্তাহ ধরে ঘাঘট নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। এতে বাঁধটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় দুপুরে পানির চাপে বাঁধটি ভেঙে যায়। এতে নতুন করে ১০ হাজারের বেশী মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এ ছাড়া আতঙ্কে রয়েছে আরও ১০ হাজার মানুষ। ফলে এলাকার বন্যা পরিস্থিতি আরো প্রকট আকার ধারণ করেছে।

তিনি অভিযোগ করেন, গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের গাফিলতির কারণেই বাঁধটি ভেঙে গেছে। এলাকাবাসী স্বেচ্ছাশ্রমে বালুর বস্তা ফেলে বাঁধটি রক্ষার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে আসছিল বলেও জানান তিনি।

এর আগে গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালী ইউনিয়নে রতনপুর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের সিংড়িয়া পয়েন্টে ব্রহ্মপুত্র নদের পানির প্রবল চাপে বাঁধটি ভেঙে যায়। এতে অর্ধলক্ষাধিক মানুষ নতুন করে পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এ নিয়ে চলতি বন্যায় জেলার দুটি বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে ধসে গেল।