• আজ মঙ্গলবার, ৪ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

ভারতীয় কনসার্টে গান গাইছেনা মাইলস


❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০১৬ বিনোদন

বিনোদন ডেস্কঃ- ভারতীয় কনসার্টে গান গাওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত গান গাইছেনা বাংলাদেশের গানের দল মাইলস ।miles

আগামী ১৩ আগস্ট কলকাতার নজরুল মঞ্চে ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ‘আজাদী ফেস্টিভ্যাল’ নামে একটি কনসার্ট হওয়ার কথা আছে। তাতে ঘোষণা এসেছিল বাংলাদেশের জনপ্রীয় গানের দল মাইলস সেখানে অংশগ্রহণ করবে। সে সঙ্গে একই মঞ্চে কলকাতার ব্যান্ড ফসিলস ও ভারতীয় গায়ক পাপনের গান করার কথা ছিল। কিন্তু ফসিলস ব্যান্ড মাইলসের বিরুদ্ধে ভারত-বিদ্বেষী মন্তব্য করার অভিযোগ আনলে সেই কনসার্টে মাইলস ও ফসিলস দুই দলের অংশগ্রহণই বাতিল হয়ে যায়।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফসিলস ব্যান্ড ও এ দলের ভক্তরা ‘বয়কট মাইলস’ নামে হ্যাশট্যাগ চালু করে। ফসিলসের আনা অভিযোগের জের ধরে মাইলসের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে কনসার্ট আয়োজকদের কার্যালয়ের বাইরে জমায়াতের প্রস্তুতিও নিয়েছিল তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই বিক্ষোভ তারা করেনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক শুরু হলে আয়োজকেরা জানান, মাইলস ‘আজাদী ফেস্টিভ্যাল’-এ গাইছে না। তা ছাড়া ফসিলসও এ কনসার্টে অংশ নিচ্ছে না বলে গতকাল বুধবার রাত পৌনে ১২টার দিকে আয়োজকেরা একটি ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে ঘোষণা দেন। কিন্তু দুপুর ১২টায় ফসিলস তাদের ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে জানায়, তারা কনসার্টের লাইনআপে থাকছে কি থাকছেনা এ বিষয়ে আয়োজকেরা তাদের তখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু নিশ্চিত করেননি।

এদিকে পুরো বিতর্কটি নিয়ে বুধবার রাতে মাইলসের সদস্য শাফিন আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘খুব ক্ষুদ্র ঘটনা দিয়েই এর শুরুটা, তাই তখন গুরুত্ব দিইনি। কিন্তু ওখানকার(ভারতীয়) মিডিয়াতে যেহেতু খবরটা বেরিয়েছে, তাই আমাদের পক্ষ থেকে একটা গোছানো বক্তব্য দেব আমরা। ওদের কাছেও আমাদের বক্তব্য পৌঁছানো দরকার। এখন দলের সদস্যরা একসঙ্গে বসব। এরপর সিদ্ধান্ত নিয়ে আমাদের বক্তব্য আমাদের ফ্যানপেজে তুলে দেব। এ ব্যাপারে আমাদের অবস্থান কাল (বৃহস্পতিবার) গণমাধ্যমকে জানাব। শুধু এটুকু বলে রাখি, গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময় আমরা যা লিখেছি, তা দেশপ্রেম থেকে লেখা, কোনোভাবেই ভারতবিদ্বেষ নয়। দেশপ্রেম নিয়ে কথা বলার অধিকার আমাদের আছে।’
ফসিলসের সদস্য রূপম ইসলাম ভারতীয় একটি দৈনিকে বলেছেন, ‘মাইলসের ভক্ত আমরা সবাই। কিন্তু তাদের এই গুণটা যখন থেকে প্রকাশিত হয়েছে, তখন থেকে আর নয়। যেকোনো ছুতোয় ভারতকে গালি দেওয়াটা ওদের একটা বড় উদ্দেশ্য। কথায় কথায় ভারতকে টেনে এনে গালি দেওয়া। এ ধরনের মানুষ ভারতেরই আবার অনুষ্ঠান করতে আসার স্বপ্ন দেখে কী করে?’