• আজ বৃহস্পতিবার, ১৩ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২৭ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

সৈয়দপুরে ১০ম শ্রেণীর ছাত্রের সাথে একাদশের ছাত্রীর প্রেমঃ পালিয়ে ১৫ দিন বসবাস, অতঃপর..


❏ সোমবার, আগস্ট ৮, ২০১৬ দেশের খবর, রংপুর

what is love 1


সৈয়দপুর প্রতিনিধি– নীলফামারীর সৈয়দপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দুই শিক্ষার্থীকে ১৫ দিন আটক করে রাখার ঘটনায় শহরে তোলপাড় চলছে। গত শনিবার সকাল ১০টায় শহরের আতিয়ার কলোনি বালুরেস ক্যাম্প (সাগর ডেকোরেটরের) বাড়ি থেকে এসআই রোজিনা বেগম গোপন সংবাদ পেয়ে দুই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে সৈয়দপুর থানায় নিয়ে আসে। তবে অভিযুক্ত রুপাকে অজ্ঞাত কারণে গ্রেপ্তার করেনি থানা পুলিশ। পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, গত ১৫ দিন থেকে ওই দুই শিক্ষার্থীকে আটক করে রেখেছে রুপা নামে এক নারী। সে পেশায় ডেকোরেটর ব্যবসায়ী বলে জানা গেছে। আটক শিক্ষার্থী এইচ এম এরশাদ নয়ন (১৬) ক্যান্ট: পাবলিক স্কুল ও কলেজের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র, পার্বতীপুর উত্তর ধোপাকলোনির সার্জেন্ট সিদ্দিক আহম্মেদের পুত্র ও শিক্ষাথী মাফরুহা জাহান আঁখি (১৮) লায়ন্স কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী, সৈয়দপুর বিমানবন্দর আবাসিক এলাকার মাসুম বিল্লাহর কন্যা। আটককৃতরা জানায়, প্রায় বছর দুয়েক ধরে তারা প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হন। একপর্যায়ে ডেকোরেটর ব্যবসায়ী রূপার সঙ্গে নয়নের পরিচয় হয়। কিছু টাকা দিলে তাদের বিয়ের ব্যবস্থা করে দেবে বলে প্রতিশ্রতি দেয় রূপা।

সেই সূত্রে রূপার ফাঁদে পড়ে বিয়ের উদ্দেশে তারা গত ২১শে জুলাই ক্লাসে যাওয়ার কথা বলে রূপার বাড়িতে গিয়ে ওঠে। রূপা তাদের কাজ থেকে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। তারা এত টাকা দিতে পারবে না বলে অস্বীকৃতি জানালে তাদেরকে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে কৌশলে নিজ বাড়িতে ১৫ দিন ধরে আটকিয়ে রাখে।

এ বিষয়ে রূপার সঙ্গে কথা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, তাদের পরিবারের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। যদি তাদের পরিবার রুপার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ দেয় তবে তাকেও আইনে আওতায় নেয়া হবে।