• আজ মঙ্গলবার, ৪ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

লালমোহনে সরকারি পুকুর দখল করে মার্কেট নির্মাণের হিড়িক


❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ৯, ২০১৬ দেশের খবর, বরিশাল

ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার লালমোহনে মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি সরকারি ঘোষণা হওয়ার পর তরিগড়ি করে শত বছরের পুরানো ঐতিহ্যবাহী পুকুর দখল করে মার্কেট নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু কে বা কারা পুকুরটি ভরাট করে মার্কেট নির্মাণ করছে তা কেউ নির্দিষ্ট করে বলতে পারছে না।bhola-lalmohan-pic-2-thumbnail

জানা গেছে, কিছুদিন আগে বিদ্যালয়টি সরকারিকরণ ঘোষণার পর থেকে পৌর শহরের প্রাণ কেন্দ্র বিদ্যালয়ের পেছনেই শত বছরের পুরানো ঐতিহ্যবাহী পুকুরটি স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল শত কোটি টাকার সম্পদ পুকুরের পাড় দখল করে নামে বেনামে বিভিন্ন মানুষের কাছে দখল দিয়ে কোটি টাকার বাণিজ্য মাঠে নেমেছে। স্কুলের কতিপয় শিক্ষক ও কমিটির সদস্যরাও এ দখল বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। এদিকে ঐতিহ্যবাহী এ পুকুরটি ভরাট করে মার্কেট নির্মাণ করায় স্থানীয়দের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

সরজমিনে দেখা যায়, পুকুরের দুইটি ঘাটে ছোট বড় ও বৃদ্ধসহ প্রায় ২০-২২ জন বিভিন্ন বয়সী মানুষ গোসল করছে। তার পাশেই পুকুরের ভেতর দোকান ঘর নির্মাণ করছেন দুজন শ্রমিক। এর মধ্যে অলিউল্যাহ নামের এক কাঠমিস্ত্রী বলেন, এ পুকুরটি ভরাট করে মার্কেট করা হবে। তবে আপাতত দোকান ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রবিবার থেকে তারা পুকুর পারে দোকান ঘর নির্মাণ কাজ শুরু করেন। স্কুল কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই এ দোকান ঘর নির্মাণ করছেন বলে জানান কাঠমিস্ত্রী অলিউল্যাহ। পুকুরটির প্রায় চারিদিকেই বাঁশ ও কাঠ দিয়ে দোকান ঘর নির্মাণের কাজ চলছে।

স্থানীয়রা জানান, শত বছর ধরে এ পুকুরে প্রতিদিন শত শত মানুষ গোসল করছে। আশপাশের অনেক নারীরা রান্নার কাজেও এ পুকুরের পানি ব্যবহার করছেন। লালমোহন শহরের কোথাও আগুন লাগলে এ পুকুরের পানি দিয়েই ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নেভাতে চেষ্টা করছেন। পুকুরটি ভরাট হলে তারা অনেক সমস্যার সম্মুখীন হবে জানান বাজার ব্যবসায়ীরা।

লালমোহন মডেল মাধ্যামিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেলাল উদ্দিন বলেন, স্কুলের পুকুরটি ভরাট করা হচ্ছে না। স্কুল থেকে পুকুরের পারে অস্থায়ীভাবে দোকান ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। স্কুলটি সরকারিকরণের ঘোষণার আগে স্কুল কমিটির সভায় রেজুলেশনের মাধ্যমে এ বরাদ্দ দেওয়া হয়।

এব্যাপারে স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের নতুন সভাপতি ও লালমোহন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামসুল আরিফ বলেন, স্কুল সরকারি ঘোষণার পর স্কুলের কোন সম্পদ বিক্রি বা লিজ দেওয়া সম্পূর্ণ অবৈধ। তিনি আরো বলেন, স্কুলের পুকুরের জমিতে ঘর তোলার খবর পেয়ে তিনি রবিবার সরেজমিনে গিয়ে ঘর তোলার কাজ বন্ধ করে দেন। ওই দিন কিছুক্ষণ কাজ বন্ধ থাকার পর প্রভাবশালী মহলটি ফের তড়িগড়ি করে পুকুর পার দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ কাজ শুরু করেন।

দখলবাজদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান ইউএনও।