• আজ মঙ্গলবার, ৪ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

ব্যাচেলরদের পাশে রাজধানীর উদার কিছু বাড়ীওয়ালা


❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১১, ২০১৬ জাতীয়

বাড়ীসময়ের কন্ঠস্বর ডেস্ক:- সম্প্রতি দেশে ঘটে যাওয়া জঙ্গি ইস্যু নিয়ে রাজধানীতে ব্যাচেলরদের বাসা ভাড়া পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। অনেক জায়গায় ব্যাচেলরদের অগ্রিম নোটিশ ছাড়া বাসা ছাড়তে বলেন বাড়ির মালিকরা। অভিজাত কিছু এলাকায় বাড়ির মালিকদের সংগঠনগুলো ‘নো ব্যাচেলর ইন আওয়ার এরিয়া’ এর মতো সিদ্ধান্ত নেয়। এতে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় বহু ব্যাচেলরকে। বিশেষ করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব শিক্ষার্থীরা রাজধানীতে মেসে থাকেন তাদের বিড়ম্বনা তো অবর্ণনীয়। কারণ চলতি মাসেই বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয় সেমিস্টার ফাইনালের বিজ্ঞপ্তি দেয়। ফলে পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়া এবং নতুন বাসার খোঁজ করা কষ্টসাধ্য হয়ে যায়।

গুলশানে সন্ত্রাসী হামলা এবং কল্যাণপুরে জঙ্গিদের আস্তানা খুঁজে পাওয়ার পর রাজধানীর কয়েকটি সন্দেহভাজন মেসে তল্লাশি চালায় পুলিশ। এ ছাড়া ঢাকা মেট্রোপলিট্রন পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে বাড়িওয়ালাদেরও ব্যাচেলরদের ভাড়া দেওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়।

এর প্রেক্ষিতে রাজধানীতে ব্যাচেলরদের ভাড়া দিতে কুণ্ঠাবোধ শুরু করেন বাড়িওয়ালারা। কিছু কিছু বাড়িওয়ালা ব্যাচেলরদের বাসা ছাড়ার নির্দেশও দেন।

তবে ব্যাচেলরদের এমন পরিস্থিতিতে এগিয়ে এসেছে রায়ের বাজার, মোহাম্মদপুর ও শ্যামলী এলাকার কিছু বাড়িওয়ালা। একই চিত্র দেখা গেছে রাজধানীর জিগাতলা এবং ধানমন্ডি এলাকায়ও। তবে এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদের পূর্ণ পরিচয় এবং প্রয়োজনীয় যাবতীয় তথ্যাদি দিতে হচ্ছে।

রাজধানীর রায়ের বাজার, মোহাম্মপুর ও শ্যামলী এলাকায় ‘শুধু ব্যাচেলরদের বাসা ভাড়া দেওয়া হবে’ এ ধরনের বাড়ি ভাড়ার বিজ্ঞপ্তি চোখে পড়ে। তবে বাসা ভাড়ার বিজ্ঞপ্তির হার তুলনামূলকভাবে কম। মালিকদের এমন উদারতাকে স্বাগত জানাচ্ছেন ব্যাচেলররা।

খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, ব্যাচেলরদের বাসা সংকট দেখে কিছু বাড়িওয়ালা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, তারা ব্যাচেলরদের বাসা ভাড়া দেবেন। তবে বেশিরভাগ বাড়িওয়ালা বাসা দেওয়ার ক্ষেত্রে উপরের ফ্লোরগুলোকে প্রাধান্য দিচ্ছন। তাদের মতে, ফ্যামেলি ভাড়াটিয়ারা ব্যাচেলরদেরকে নিয়ে প্রতিনিয়তই অভিযোগ করেন। অন্যদিকে ফ্যামেলি বাসা বেশি উপরে থাকতে চায় না। সেক্ষেত্রে ব্যাচেলরদের উপরের ফ্লোরগুলোতে থাকতে দেওয়া যায়।

মোহাম্মদপুরের কয়েকজন বাড়িওয়ালা বলেন, ‘খালি বাসা ভাড়া নেওয়ার জন্য ব্যাচেলররা এত বেশি নক করছেন, তাদের সমস্যাগুলো আমাদেরকে এমনভাবে উপস্থাপন করছেন, তাতে বাসা ভাড়া না দিয়ে কোনো উপায় নেই। মূলত, বাড়ি ভাড়া আমাদের কাছে ব্যবসা। কিন্তু অনেক সময় নিরাপত্তা শঙ্কায় থাকতে হয়। তবে বাসা ভাড়া দেওয়ার আগে ভাড়াটিয়দের তথ্য সংগ্রহে পুলিশের যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, তার উপর ভিত্তি করে ভাড়া দেওয়া যায়।’

ধানমন্ডি পুরাতন ১৫ নম্বরের ৭২৪ নম্বর বাড়ির মালিক আজাদ রহমান বলেন, ‘ফ্যামেলি বা ব্যাচেলর যারাই হোক না কেন আমার বাসা ভাড়া দিতে কোনো সমস্যা নেই। তবে আমার শর্ত থাকে ভাড়াটিয়ারা যেন সুশৃঙ্খল পরিবেশে থাকে। তারা যেন অন্য কারো সমস্যার কারণ না হয় দাঁড়ায়।’

তিনি বলেন, ‘আমার সাততলা বিল্ডংয়ের ছয় এবং সাত তলা ব্যাচেলরদের ভাড়া দেই। একদিকে ফ্যামেলি ভাড়াটিয়ারা বেশি উপরে বাসা নিতে চায় না, অন্যদিকে ব্যাচেলররা বাসা সংকটে রয়েছে। এ কারণে তাদের জন্য উপরের দুই ফ্লোর বরাদ্দ রেখেছি, যেন কেউ আসলে হতাশ হয়ে ফিরে না যায়।’

মোহাম্মদপুরের কাদেরাবাদ হাউজিংয়ের `সি` ব্লকের আট নম্বর ‘তানিয়া মোহসিন’ বাড়ির দারোয়ান আলতাফ হোসেন বলেন, নিচতলা এবং উপরের দুই ফ্লোরে ব্যাচেলররা থাকে। ওই ফ্ল্যাটগুলো খালি হলে আমরা ব্যাচেলরদেরকেই প্রাধান্য দেই।’

কিছু বাড়িওয়ালার ব্যাচেলরদের বাড়ি ভাড়া দেওয়ার ক্ষেত্রে উদারতাকে স্বাগত জানিয়ে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সির শিক্ষার্থী মাকসুদুর রহমান রায়হান বলেন, ‘মন সংকোচিত না করে এবং ব্যাচেলরদের বিশ্বাস করে সকল বাড়ির মালিকদের উচিৎ ব্যাচেলর বাড়ি ভাড়া দেওয়া। ফলে বাড়িওয়ালাদের প্রতি ব্যাচেলরদের নেতিবাচক মনোভাব কমে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘কিছু যুবক বিপথগামী হলো, তার মানে এই না যে সমাজের সবাই বিপথগামী হয়ে গেল। আর কিছু মানুষের জন্য কেন লাখ লাখ ব্যাচেলর ভোগান্তিতে পড়বে।’

আজিজুল হাকিম বলেন, ‘যারা জঙ্গি কর্মকাণ্ডে জড়িত তারা ব্যাচেলর বলে বাসা ভাড়া নিয়েছিল। এ বিবেচনা করে বাড়ির মালিকরা বাসা ভাড়া থেকে ব্যাচেলরদের বঞ্চিত করতে চান। এখন আমার প্রশ্ন হলো- যারা ফ্যামেলি বাসা নিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপ চালায় তাদের অপরাধের উপর ভিত্তি করে তারা কী বিচার করবেন?’

এদিকে ব্যাচেলরদের বাড়ি ভাড়া সংকটে প্রতিবাদ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে ভাড়াটিয়া পরিষদ। তারা আগামী ১১ আগস্ট রাত ৮টা থেকে ৯টা পর্যন্ত ব্যাচেলরদের আবাসন ভোগান্তির প্রতিবাদে একটি বালিশসহ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতীকী প্রতিবাদ জানাবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।

অন্যদিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডিসি (গণমাধ্যম) মাসুদুর রহমান বলেছেন, ব্যাচেলরদের বাসা ভাড়া দেওয়া বা না দেওয়ার বিষয়ে ডিএমপির কোনো নির্দেশনা নেই। তবে বাড়িওয়ালার দায়িত্ব ভাড়াটিয়ার সকল তথ্য নিজ দায়িত্বে সংশ্লিষ্ট থানায় সরবরাহ করা।’