• আজ সোমবার, ৩ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

বৈরী আবহাওয়ায় শিমুলিয়া ঘাটে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ঘরমুখো যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়ার আশঙ্কাই বেশি


❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১১, ২০১৬ ঢাকা

মোঃ রুবেল ইসলাম তাহ্মিদ (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
পদ্মা পাড়াপাড়ের লক্ষ্যে মধ্যেই রাজধানীসহ দক্ষিণ- দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমাঞ্চলের অন্যতম প্রবেশদ্বার শিমুলিয়া ফেরীঘাটে। ভরা বর্ষা ও বৈরী আবহাওয়া ও পলিযুক্ত পদ্মায় পানির স্রোতের টানের কারণে এ নৌ চ্যানেলে ফেরী চলাচল বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।কেননা এরই মধ্যে মূলপদ্মায় লৌহজং টানিংয়ে গতকাল বুধবার দুপুর থেকে বালু পাথর বাহী( বলগেট ) যাহাজ. আটকে রয়েছে

এর আগে স্রোতের কারণে চলতি গত কয়েকদিন থেকে শিমুলিয়া কাওড়াকান্দি রুটের ফেরী চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।ফলে অনাকাঙ্খিত এ উভয়মুখী সমস্যার কারণে ফেরী পারাপারে বিপর্যয়ের সৃষ্টি হলে যে কোন সময় ফেরী চলাচল বন্ধহয়ে দীর্ঘ যানজটের কবলে ঘরমুখো হাজার হাজার যাত্রী চরম দুর্ভোগে পড়তে পারেন।শিমুলিয়া বিআইডব্লিউটিসির ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) খালিদনেওয়াজ ওগিয়াস উদ্দিন পাটোয়ারী সহ একাধিক সূত্রে জানা গেছে,চলতি বর্ষায় উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে পদ্মায় পানি বৃদ্ধি পেয়ে গত ১০/১২ দিন ধরে শিমুলিয়া ঘাট থেকে লৌহজং টার্নিং পর্যন্ত বড় নদীতে স্রোত বিরাজ করতে শুরু করেছে।

feriস্রোতের তীব্রতা ক্রমেই বেশী করে দেখা দেওয়ায় ফেরী চলাচল কিছুটা  বিঘ্নিত হচ্ছে।ফলে রো-রো ফেরী,কে টাইপ ও ডাম্ব ফেরীগুলো ঘাট ধরতে রাউন্ড ট্রিপে অতিরিক্ত আধাঘন্টা সময় লাগছে। একইসাথে স্রোতের মাত্রা আরো বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এতে করে নৌরুটে পানির ¯্রােতও ব্যাপকভাবে বেড়ে যেতে পারে।ফলে ফেরী পাপাপারেও বিপর্যয়ের আশঙ্কা রয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা ধারণা করছেন।একইসাথে ¯্রােতের সাথে সাথে শিমুলিয়া চরজানাজাত নৌরুটের মুল পদ্মায় পলি প্রবাহ শুরু হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট জানা গেছে।এতে করে ঘোলা পানির পলি অতিমাত্রায় জমতে জমতে যে কোন মুহুর্তে যে কোন পয়েন্টে নৌরুটে ডুবোচরের সৃষ্টি হয়ে নাব্যতা সঙ্কটের মুখে পড়ার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে ।

এদিকে পদ্মায় উত্তাল থাকায় নৌরুটের ডাম্ব ফেরীসহ সকল ফেরী চলাচল ঝুঁকিপূণ হয়ে পড়ে। রো রো , কে টাইপ ও মিডিয়াম ফেরীসহ মোট ১৬ট ফেরীর মধ্য চলাচল করছে ৮টি। অতি গুরুত্বপূর্ণ এ ঘাট দিয়ে ফেরীতে দক্ষিণবঙ্গগামী যানবাহন পারাপার বন্ধ হয়ে পড়লে। চরম দুর্ভোগে পড়বে ঘাটে আটকে থাকা ফেরীযাত্রীরা।

অন্যদিকে এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএর উপরিচালক এস,এম আজগর আলী বলেন ফেরী সার্বক্ষণিক সচল রাখতে শিমুলিয়া টার্নিং থেকে টার্নিংয়ে আটকেপড়া বলগেট টি সরিয়ে নেয়া চেষ্ঠা চালাচ্ছি তাতে ফেরী চলাচলে কিছুটা বিঘিœত অবস্থা দেখা দিয়েছিল।
বর্তমানে ফেরী চলাচল বিঘিœত হওয়ায় খুবই সতর্কতার সাথে এখানে ফেরী চালাতে হচ্ছে। লৌহজং হাজরা টার্নিং পয়েন্টে বিআইডব্লিউটিএর হাইড্রোগ্রাফিক্্র জরিপ কাজ ও চলছে প্রয়োজন হলে ড্রেজিংদিয়ে , বিঘিœত সঙ্কট ব্যবস্থা করা হবে ।