• আজ সোমবার, ৩ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

বাংলাদেশ থেকে সৌদির শ্রমিক নেওয়ার ঘোষণায় আশার আলো দেখছে চট্টগ্রামের মানুষ


❏ শনিবার, আগস্ট ১৩, ২০১৬ Uncategorized

সময়ের কণ্ঠস্বর – বাংলাদেশ থেকে সৌদির শ্রমিক নেওয়ার ঘোষণায় আশার আলো দেখছে চট্টগ্রামের মানুষ আশার আলো দেখছে বৃহত্তর চট্টগ্রামের বাসিন্দারা। এক দশক আগেও এখান থেকে প্রতি বছর ৩০ থেকে ৪০ হাজার শ্রমিক দেশটিতে গেলেও গত ছয় বছরে তা দাঁড়িয়েছে মাত্র সাড়ে ১২শ’ জনে।

soudi

এ অবস্থায় জনশক্তি রপ্তানিতে সব এজেন্সিকে সমান সুযোগ দেয়ার দাবি আটাব এবং বায়রা নেতাদের।

ধর্মীয় রক্ষণশীলতার কারণে এ অঞ্চলের বাসিন্দারা সব সময় বিদেশে কাজের ক্ষেত্রে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবকেই বেছে নিতো। নব্বই দশকে প্রতি বছর বাংলাদেশ থেকে ৬০ হাজারের বেশি শ্রমিক কাজের ভিসা নিয়ে যেতো সৌদি আরবে। এর মধ্যে অর্ধেকের বেশি শ্রমিক ছিলো বৃহত্তর চট্টগ্রামের বিভিন্ন জেলার। কিন্তু নানা কারণে সাম্প্রতিক সময়ে সৌদি আরবে জনশক্তি রপ্তানিতে ভাটা পড়ে আসে। চলতি বছরের প্রথম সাত মাসে চট্টগ্রাম থেকে মাত্র ৬’শ ৭১ জন শ্রমিক সৌদি আরব যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে।

এর আগে ২০১৫  সালে ২’শ ১০ জন, ২০১৪ সালে ২৯ জন, ২০১৩ সালে ৭৯ জন, ২০১২ সালে ১’শ ৫৬ জন এবং ২০১১ সালে ১২০ জন শ্রমিক কাজের ভিসা নিয়ে সৌদি আরব যায়।

জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. জহিরুল আলম মজুমদার বলেন, ‘২০০৬-২০০৭ সালে বাংলাদেশ থেকে বেশ কিছু শ্রমিক সৌদি আরবে যায় এরপর আবার কমে যায়।’

এ অবস্থায় সৌদি আরব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ায় আশার আলো দেখছে কাজের ভিসা নিয়ে সৌদি আরব যেতে আগ্রহী এখানকার বাসিন্দারা। এক্ষেত্রে সব ধরণের জটিলতা এড়িয়ে সৌদি আরবে জনশক্তি রপ্তানি বাড়াতে দেশের ১৪শ’ ট্রাভেল ব্যবসায়ীকে সমান সুযোগ দেয়ার দাবি বায়রা এবং আটাব নেতাদের।

বায়রার কার্যকরী সদস্য এমদাদ উল্লাহ বলেন, ‘বিশেষ বিশেষ এজেন্টরা যেন প্রবাসী কর্মীদের পাঠাতে পারে এমন ব্যবস্থা যেন সরকার না নেয়। বাংলাদেশে প্রায় ১৪শ’ লাইসেন্স আছে এছাড়া বায়রার ১৪শ’ নম্বর আছে আর এই বায়রার ১৪শ’ নম্বরই যেন সরকার উন্মুক্ত করে দেয় এই কামনাই করি সরকারের কাছে।’

আটাবের কার্যকরী সদস্য মোহাম্মদ শাহ আলম মনে করেন, ‘বায়রার যেসব রিপোর্টিং এজেন্ট আছে তাদের সক্রিয় থাকতে হবে। আর যদি কোনো প্রতারণা হলে অবশ্যই সরকারকে জানাতে হবে। এবং সেই সাথে সরকারকে নজরদারিতে রাখেতে হবে। ’

দীর্ঘ ছয় বছরের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি নেয়া বন্ধ রাখার পর বুধবার প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় সৌদি সরকার।