🕓 সংবাদ শিরোনাম

শিশুকে ডায়াবিটিস থেকে দূরে রাখতে কী কী সতর্কতা অবলম্বন করবেনদক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াকে তৈরি থাকার বার্তা দিল ”হু”বুড়িগঙ্গায় ’সাকার ফিশ’র দখলে, হুমকিতে দেশীয় মাছরোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির থেকে ধারালো অস্ত্রসহ আটক-৫করতোয়ার তীরে নিথর পড়ে ছিলো মস্তকহীন নবজাতক!গাজীপুরে দুই শিশুকে ‘হত্যার’ পর ফ্যানে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা মা’য়ের!ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ: জাহাজ চলাচল বন্ধ; সহস্রাধিক পর্যটক আটকা সেন্টমার্টিনেআখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো নীলফামারীর তিনদিন ব্যাপী ইজতেমাবঙ্গবন্ধুর শাসনব্যবস্থা নিয়ে গবেষণা করতে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রীর আহ্বানভোটে হেরে ক্ষোভ মেটাতে রাস্তায় বেড়া দিলেন প্রার্থী, ভোগান্তিতে পুরো গ্রাম!

  • আজ রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

গ্যাস হতে পারে যেসব পুষ্টিকর খাবারে..!


❏ সোমবার, আগস্ট ১৫, ২০১৬ লাইফস্টাইল

nutritious-meal-and-gas


লাইফস্টাইল:

গ্যাস বা বদহজমের সমস্যা বর্তমানে একটি সাধারণ সমস্যা। প্রায় প্রতিদিনই আমরা এ সমস্যার মুখোমুখি হই।

মূলত ভাজাপোড়া বা তেল জাতীয় খাবারকে গ্যাস বা পেট ফাঁপা সমস্যার জন্য দায়ী করা হয়ে থাকে। কিন্তু অনেক সময় স্বাস্থ্যকর কিছু খাবার খাওয়ার পরও এই সমস্যা হয়ে থাকে। গ্যাসের কারণে খাবারে অরুচি, মাথা ধরা, বমি হওয়া, পেটে ব্যথাসহ শারীরিক নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই গ্যাস সৃষ্টি হতে পারে এমন খাবার কিছুটা সাবধানেই খাওয়া উচিত।

১। নানা ধরণের ডালঃ

প্রোটিনের অন্যতম উৎস ডাল। বিবিধ পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ এই ডাল পেটে গ্যাস সৃষ্টি করে থাকে। এই সমস্যা থেকে বাঁচতে ডালকে রান্নার আগে সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। তারপরের দিন রান্না করুন। এটি সহজে হজম হয়ে যাবে।

২। দুগ্ধ জাতীয় খাবারঃ

দুধ, পনির, টকদই, মাখন ইত্যাদি খাবার স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকার। কিন্তু অনেকের এই খাবারগুলো থেকে গ্যাস সৃষ্টি হয়ে থাকে। তারা দুধের পরিবর্তে নারকেল দুধ, বাদাম দুধ, সয়া দুধ খেতে পারেন।

৩। রসুনঃ

অনেক মানুষ রসুন খাওয়ার পর পেট ফাঁপা বা গ্যাসের সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকে। তাই অতিরিক্ত রসুন খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। অন্যান্য খাবারের সাথে রসুন রান্না করা হলে এই সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়া সহজ।

৪। পেঁয়াজঃ

পেঁয়াজের ফ্রুকটান নামক উপাদান গ্যাসের সৃষ্টি করে থাকে। এই সমস্যাটা বেশি হয়ে থাকে কাঁচা পেঁয়াজ খাওয়ার কারণে। পেঁয়াজ বিভিন্ন মশলা দিয়ে রান্না করে খেলে এই সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

৫। আপেলঃ

যারা ফ্রুক্টোজ মেলাবসোরপোশন রোগে আক্রান্ত, যারা প্রাকৃতিক চিনি গ্রহণ করতে পারেন না, আপেল তাদের গ্যাস সৃষ্টি করে থাকে। এর থেকে পেট ফাঁপা সমস্যা, বমি বমি ভাব, ডায়েরিয়াসহ নানা সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে।

৬। তরমুজঃ

গরমে প্রাণ জুড়াতে তরমুজের জুড়ি নেই। কিন্তু এই তরমুজ পেটে গ্যাসের সৃষ্টি করে পেট ফাঁপা সমস্যা তৈরি করে থাকে। তরমুজে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফ্রুক্টোজ যা পেটে গ্যাস সৃষ্টি করে।

৭। আমঃ

আম এমন একটি ফল এতে গ্লুকোজের তুলনায় ফ্রুক্টোজের পরিমাণ বেশি থাকে। যার কারণে শরীরে গ্যাস, বমি বমিভাব সমস্যা হয়ে থাকে। যদি আম খাওয়ার পর এই সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে, তবে আম খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

এছাড়াও অনেক সময় চুইং গাম, আলু বোখরা, প্রসেসড ফুড, ব্রকোলী, বাঁধাকপি ইত্যাদি খেলেও পেটে গ্যাস হতে পারে।