🕓 সংবাদ শিরোনাম

খেলার আগে মাঠে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ালেন কুড়িগ্রামের ক্রিকেটারেরাপাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হলো প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামকেকর্মস্থলে ফিরতে গাদাগাদি করে রাজধানীমুখী লাখো মানুষশেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে ৭ জনের মৃত্যুএক বিয়ে করে দ্বিতীয় বিয়ের জন্যে বড়যাত্রীসহ খুলনা গেল যুবক!আমার মৃত্যুর জন্য রনি দায়ী! চিরকুট লিখে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যাইসরাইলীয় আগ্রাসনের  বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্বের নিন্দার নেতৃত্বে সৌদি আরবত্রিশালে সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যুতে নিহতের বাড়ীতে চলছে শোকের মাতমকলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীর মরদেহ উদ্ধারটাঙ্গাইলে কৃষক শুকুর মাহমুদ হত্যা মামলায় গ্রেফতার-১

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

এক চার্জারে একইসঙ্গে চার্জ হবে ৮০টি ফোন..!


❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ১৬, ২০১৬ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

news_picture_35727_charger1


প্রযুক্তি ডেস্কঃ

উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন সোলার চার্জার তৈরি করে সাড়া ফেলে দিলেন নিয়াকারুন্ডি নামের রায়ান্ডার এক শরণার্থী। তার তৈরি এই সোলার চার্জার কার্ট একসঙ্গে ৮০টি মোবাইলফোন চার্জ করতে পারে।

রায়ান্ডাতে বসবাসকারী ৭০ শতাংশ মানুষ সেলফোন ব্যবহার করলেও সেখানে বিদ্যুৎ সংযোগ আছে মাত্র ১৮ শতাংশ মানুষের। এসব মানুষের ফোন চার্জের ভোগান্তি কমাতেই এই সোলার চার্জার তৈরি করেছেন নিয়াকারুন্ডি। নিয়াকারুন্ডি জানিয়েছেন, “আমার লক্ষ্য হল আফ্রিকা জুড়ে ৫০ হাজার থেকে এক লাখ ক্ষুদ্রব্যবসা তৈরি করা।

তার তৈরি এই সোলার পাওয়ার চার্জার একটি বাইসাইকেলের সঙ্গে যুক্ত থাকায় বিভিন্ন জায়গায় স্থানান্তরযোগ্য এবং একই সঙ্গে ৮০টি মোবাইল চার্জ করতে সক্ষম। তার প্রতিষ্ঠান আফ্রিকান রিনিউয়েবল এনার্জি ডিস্ট্রিবিউটর (এআরএডি)-এর নেতৃত্বে এই সোলার চার্জার তৈরি করেছে তিনি। বর্তমানে রায়ান্ডাতে এমন ২৫টি সোলার চার্জার চালু রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

আগামী দুই বছরের মধ্যে সেখানে ৬০০ থেকে ৮০০টি চার্জার বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে নিয়াকারুন্ডির। এআরএডি-এর কাছে থেকে ১০০ ডলার ডাউন পেমেন্ট দিয়ে এজেন্টরা চার্জার গাড়ি সংগ্রহ করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে মাসিক কিস্তির পরিমাণ ২০০ ডলার। এর মাধ্যমে এজেন্টরা মাসে ৩৮ থেকে ১০৭ ডলার আয় করতে পারবে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

নিয়াকারুন্ডির যাত্রা শুরু হয় রায়ান্ডাতে শরণার্থী হিসেবে। বুরুন্ডিতে গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়া পর্যন্ত তিনি সেখানেই বেড়ে ওঠেন। জর্জ স্টেট ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার বিজ্ঞান বিষয়ে পড়াশোনা করেন তিনি। ১৯ বছর বয়সেই তিনি তার প্রথম স্টার্টআপ তৈরি করেন।

নিয়াকারুন্ডি বলেন, “আমি চাকরি করার মতো মানুষ নই। আমি সব সময় আমার নিজের সিদ্ধান্ত নিতে পছন্দ করি।