🕓 সংবাদ শিরোনাম

ফিরে দেখা, ১৯৭১- ‘মুক্তিযুদ্ধের এই দিনে’দু’সপ্তাহের মধ্যেই শিশুদের কোভিড টিকাকরণ, সিদ্ধান্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নেবাড়িতে লুকিয়ে রাখা ৪৭ ভরি স্বর্ণসহ তিন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ আটকফিরে দেখা; ইতিহাসে আজকে এই দিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা প্রবাহশীতে অপরূপ লাল শাপলার ডিবির হাওরময়মনসিংহ শহরের ভেতরেই রেলক্রসিং: প্রতিদিন ৮ ঘন্টা যানজটবিজয়ের ৫০ বছরে ওয়ালটন ল্যাপটপ ও এক্সেসরিজে ৫০% পর্যন্ত ছাড়মাইকিং করে ২গরু জবাই করল পরাজিত প্রার্থী, দাওয়াতে এলো না কেউ!সুনামগঞ্জে আফ্রিকা ফেরত প্রবাসীর বাড়িতে লাল পতাকাতদন্ত কর্মকর্তাসহ ৬৫ জনের সাক্ষ্য-জেরায় সাক্ষ্যপর্ব সমাপ্ত

  • আজ বৃহস্পতিবার, ১৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ২ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

অলিম্পিকে দ্রুততম গোল নেইমারের, ভিডিওতে দেখুন হন্ডুরাসের জালে ব্রাজিলের ৬ গোল


❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৬ খেলা, স্পট লাইট

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক –

অলিম্পিকের ইতিহাসে দ্রুততম গোল করে ব্রাজিলকে রিও অলিম্পিকে পুরুষদের ফুটবলের ফাইনালে নিয়ে গেলেন অধিনায়ক নেইমার। তিনি ১৫ সেকেন্ডে প্রথম গোল করেন। একেবারে শেষমুহূর্তে পেনাল্টি থেকে আরও একটি গোল করেন বার্সেলোনার এই তারকা।

অলিম্পিকের সেমিফাইনালে হন্ডুরাসকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে অধরা অলিম্পিক ট্রফির আরো কাছে পৌঁছেছে ব্রাজিল।

ঐতিহাসিক মারাকানা স্টেডিয়ামে বুধবার ম্যাচের প্রথম ও শেষ গোলটি করেছেন ব্রাজিল অধিনায়ক নেইমার। গ্যাব্রিয়েল জেসুসও করেছেন দুই গোল। বাকি দুটি গোল করেছেন মারকিনহোস ও লুয়ান।

বাংলাদেশ সময় বুধবার রাত ১০টায় রিও ডি জেনিরিও’র বিখ্যাত মারাকানা স্টেডিয়ামে হন্ডুরাসের মুখোমুখি হয় হলুদ জার্সিধারীরা।

অপেক্ষাকৃত দুর্বল প্রতিপক্ষ হন্ডুরাসকে খেলা শুরু হতেই ধাক্কা থেকে হয়। অলিম্পিক ফুটবলে দ্রুততম গোল করে রেকর্ড গড়লেন ব্রাজিলিয়ান তারকা ফুটবলার নেইমার জুনিয়র। খেলা শুরুর মাত্র ১৫ সেকেন্ডের মাথায় গোল করে রেকর্ড গড়েন তিনি। সেলেকাও দলপতি নেইমারের দুর্দান্ত গোলে এগিয়ে যায় রজারিও মিকেলের শিষ্যরা।

খেলার ১৩তম মিনিটের মাথায় হন্ডুরাসের ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। তবে, সেখান থেকে কোনো সুযোগ হয়নি গোলের।

খেলার ২৬ মিনিটের মাথায় লুয়ানের অ্যাসিস্ট থেকে ব্রাজিলের লিড দ্বিগুণ করেন গ্যাব্রিয়েল।

neymar-goals-hondurus

খেলার ৩৫তম মিনিটে দলের তৃতীয় আর নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন সেই গ্যাব্রিয়েলই। এবারে গোল করতে বলের যোগানদাতা হিসেবে ছিলেন নেইমার।

প্রথমার্ধে আর কোনো গোল না হলে ৩-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় ব্রাজিল।

বিরতির পর আবারও হন্ডুরাসের সীমানায় আক্রমণে যায় ব্রাজিল। খেলার ৪৮ মিনিটে দারুণ এক প্রচেষ্টা চালান কোয়ার্টার ফাইনালের গোলদাতা লুয়ান। তার সামনে ছিলেন শুধুই প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক লোপেজ। তবে, লুয়ানের আলতো শট ঝাঁপিয়ে রুখে দেন লোপেজ।

খেলার ৫১ মিনিটের মাথায় দলের চতুর্থ গোলটি করেন ব্রাজিল তারকা মারকুইনহোস। নেইমারের কর্নার কিক থেকে উড়ে আসা বল প্রথম প্রচেষ্টায় জালে জড়াতে না পারলেও দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় ঠিকই হন্ডুরাসের গোলরক্ষক আর এক ডিফেন্ডারের মাঝ দিয়ে বল জালে জড়িয়ে দেন মারকুইনহোস। ফলে, ব্রাজিল এগিয়ে যায় ৪-০ গোলে।

খেলার ৭৯ মিনিটে ব্রাজিলের লিড দাঁড়ায় ৫-০ তে। গ্যাব্রিয়েলের বদলি খেলোয়াড় ফিলিপ অ্যান্ডারসনের বাড়িয়ে দেওয়া কোনাকুনি শটে একেবারে ফাঁকায় দাঁড়ানো লুয়ান বল জালে জড়িয়ে দেন। পরের মিনিটে হন্ডুরাসের বানেগাসের দূরপাল্লার জোরালো শট রুখে দেন ব্রাজিল গোলরক্ষক উইভারটন।

৮৯ মিনিটে নেইমারের দুর্দান্ত একটি শট প্রতিহত হয়। একই মিনিটে লুয়ানকে নিজেদের ডি-বক্সে ফাউল করেন হন্ডুরাসের এক ডিফেন্ডার। ফলে, পেনাল্টি লাভ করে ব্রাজিল। আর দলের অধিনায়ক নেইমার পেনাল্টি শট থেকে দলকে ৬-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে নিয়ে যান।

পাঁচ পাঁচবার বিশ্বকাপের পরশ পেলেও অলিম্পিকের সোনা এখনও অধরাই রয়ে গেছে ব্রাজিলিয়ানদের। বহুবারের চেষ্টাও শেষ পর্যন্ত বৃথা হয়েছে। কিন্তু এবার ঘরের মাঠে সেই ব্যর্থতা ঘুচাতে বদ্ধপরিকর সেলেসাওরা।

হন্ডুরাসের জালে ব্রাজিলের ৬টি গোল দেখতে এখানে ক্লিক করুণ