• আজ সোমবার, ২১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

ক্ষনিকের জন্য কষ্ট লাঘব-চার হাজার মানুষের


❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৬ দেশের খবর, রংপুর

মাজহারুল ইসলাম লিটন, ডিমলা (নীলফামারী): আপাতত কষ্ট লাঘব হলো নীলফামারীর টুপামারী ইউনিয়নের পাঁচ নং ওয়ার্ডের চার হাজার মানুষের।
অধিকারী পাড়া উপর দিয়ে প্রবাহমান যমুন্বেশরী নদীর পানি ছাপিয়ে মুল সড়কে উঠা মানুষদের এখন আর বুক ভরা পানি পেরিয়ে আসা যাওয়া করতে হবে না।pul-nil-18.08.16

দুর্ভোগে থাকা ওইসব মানুষদের সেখানে একটি সেতু নির্মাণের দাবী দীর্ঘদিনের থাকলেও উপেক্ষিত হয়েছে বারবার বাধ্য হয়ে স্থানীদের উদ্যোগে ৮০ফিট বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে বাঁশের সাঁকোর উদ্বোধন করেন সদর উপজেলা যুবলীগের অর্থ সম্পাদক ও টুপামারী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কাশেম শাহ। উদ্বোধনকালে ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মশিউর রহমান রতন, ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আ’লীগ সভাপতি মানিকুজ্জামান, সদর উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়াহেদ পারভেজ ও সাঁকো নির্মাণের উদ্দ্যোক্তা রফিকুল ইসলাম নেন্দু উপস্থিত ছিলেন।

অধিকারী পাড়ার মানিক অধিকারী ও বাবুল চন্দ্র জানান, সেতু না থাকায় অনেক দিন থেকে দুর্ভোগ পোহাচ্ছিলেন প্রায় চার হাজার মানুষ। বর্ষার সময় বুক ভরা পানি ছাপিয়ে আসতে হতো মুল সড়কে। চেয়ারম্যান-মেম্বারকে বলেও কোন কাজ হয়নি।

বাঁশের সাঁকো নির্মাণের উদ্যোক্তা রফিকুল ইসলাম নেন্দু জানান, স্থানীয়দের সহযোগীতায় সাঁকোটি তৈরি করা সম্ভব হয়েছে। যে যেভাবে পেরেছেন এগিয়ে এসেছেন। কেউবা বাঁশ, কেউবা শ্রম আর কেউবা অর্থ দিয়ে সহযোগীতা করেছেন মানুষদের কষ্ট লাঘবে।

স্থানীয় মিন্টু অধিকারী জানান, ১৫দিন থেকে আমরা সাঁকোটি নির্মাণে কাজ করছি। সাঁকোটি নির্মাণে প্রায় ২০হাজার টাকা খরচ হয়েছে বলে জানান তিনি।
উদ্বোধন শেষে বাঁশের সাঁকোর পরিবর্তে যতদিন না আরসিসি সেতু নির্মাণ হবে ততদিন পর্যন্ত বাঁশের সাঁকোর সংস্কার কাজের খরচ বহনের ঘোষনা দেন যুবলীগ নেতা আবুল কাশেম শাহ।