• আজ রবিবার, ১৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ২৮ নভেম্বর, ২০২১ ৷

চাকুরী থেকে বহিস্কার করায় প্রাণ-আরএফএল কারখানায় যুবকের আত্মহত্যা


❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

রেজাউল সরকার (আঁধার), গাজীপুর: গাজীপুরের কালীগঞ্জে চাকুরী থেকে বরখাস্ত করায় গলায় ফাস দিয়ে এক যুবক আত্মহত্যা করার সংবাদ পাওয়া গেছে। থানা পুলিশ ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার দুপুরে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের নিকট মরদেহ হস্তান্তর করা হয়। ঘটনাটি উপজেলার পৌর এলাকার মূলগাঁও গ্রামের প্রাণ-আরএফএল কারখানায় ঘটে।fasi385ff

যুবকের আত্মহত্যার খবর ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ কয়েক হাজার শ্রমিক কারখানার বেশকিছু ভবনে ভাংচুর চালায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। নিহত যুবক খুলনার ডুমুলিয়া উপজেলার বয়ের সিং গ্রামের মৃনাল মন্ডলের ছেলে। তিনি কালীগঞ্জে প্রাণ-আরএফএল কারখানায় ভেবারেজ (লাচ্ছি) বিভাগের সিফট ইনচার্জ হিসেবে কাজ করতেন।

স্থানীয়রা জানায়, নিহত প্রসেনজিৎ প্রাণ-আরএফএল কারখানায় দীর্ঘ ৫/৬ বছর যাবত কাজ করছিল। গত ১৩ আগস্ট রাতে শরীর অসুস্থার কারণে কার্ড পাঞ্চ করে মেসে তার রুমে চলে আসে। পরের দিন রোববার কাজে যোগ দিলে এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতনদের সাথে তার কথা কাটাকাটি হয়। পরে কর্তৃপক্ষ এ কারণে সাময়িক বরখাস্ত করেন। বুধবার সকালে তার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে নিজের ভুল স্বীকার করে পুনরায় চাকুরি ফিরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করেন। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তাদের সিদ্ধান্তে অটল থাকেন। পরে প্রসেনজিৎ চাকুরী থেকে বহিস্কারের অভিমানে বিকেলে কারখানার ভেতরে তার থাকার মেসের সিলিং ফ্যানের সাথে গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের নিকট মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।

এ ব্যাপারে প্রাণ-আরএফএল কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেও তাদের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, এ ব্যাপারে প্রসেনজিৎ এর এক সহকর্মী কুড়িগ্রামের রৌমারি উপজেলার গয়পাড়া গ্রামের নওশের আলীর ছেলে কেরাম আলী বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা (নং ২২) দায়ের করেন।