• আজ সোমবার, ২১ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

পরকীয়ায় আসক্ত শ্রীপুর যুবলীগের আহ্বায়ক: স্ত্রীকে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ


❏ শুক্রবার, আগস্ট ১৯, ২০১৬ আলোচিত, ঢাকা
গাজীপুর প্রতিনিধি : জেলার শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটী ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়কের বিরুদ্ধে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
পরকীয়ায় আসক্ত ওই নেতার নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় চৌদ্দ মাসের শিশু কন্যাকে সহ স্ত্রীকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে।
তিন সন্তানের জননী স্ত্রী আফরোজা আক্তার আলেয়া এখন দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন  নির্যাতনের বিচার চেয়ে ।
উপজেলার তেলিহাটী ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান রিপনের নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচার জন্য স্ত্রী আফরোজা আক্তার আলেয়া আদালতে মামলাও করেছেন। মামলা করেও তিনি পড়েছেন বিপাকে। মামলা তুলে নেওয়ার জন্য আলেয়ার পরিবারকে রিপন প্রতিনিয়ত হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন বলে জেলা পুলিশ সুপারের কাছে আলেয়া লিখিত অভিযোগ করেছেন।
উপজেলার টেপিরবাড়ি গ্রামের মৃত মতিউর রহমানের ছেলে তেলিহাটী ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান রিপনের সঙ্গে পনেরো বছর আগে বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী উজিলাব গ্রামের আশরাফুল আলমের মেয়ে আফরোজা আক্তার আলেয়ার। তাদের সংসারে দুই মেয়ে ও এক ছেলে সন্তান রয়েছে। বছর খানেক আগে রিপন এক নারীর পরকীয়ায় আসক্ত হয়ে আলেয়ার ওপর নির্যাতন শুরু করেন।
p1আফরোজা আক্তার আলেয়া জানান, গ্রামে মঞ্চনাটকে অভিনয় করতে গিয়ে রিপন এক অভিনেত্রীর প্রেমে পড়েন। এর প্রতিবাদ করায় তার ওপর নেমে আসে নির্যাতন। বালিশ চাপা দিয়ে বেশ কয়েকবার শ্বাসরোধে তাকে হত্যার চেষ্টাও করেন রিপন।
আলেয়া বলেন, ‘অবশেষে আমার কাছে ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন রিপন। যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় দুই সন্তানকে রেখে চৌদ্দ মাসের শিশুকে সঙ্গে দিয়ে আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেন রিপন। গত ২৬ জুলাই আমি গাজীপুরের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে রিপনের বিরুদ্ধে মামলা করি। আদালত থেকে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করলেও শ্রীপুর থানা পুলিশ রিপনকে গ্রেফতার করছে না বলে গত ১৪ আগস্ট জেলা পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।’
থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান বলেন, আসামি রিপনকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়েছে। তাকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ তৎপর রয়েছে। অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমান রিপন বলেন, স্ত্রীর সঙ্গে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।