🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ১৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৩০ নভেম্বর, ২০২১ ৷

নাইকো দুর্নীতি মামলা: আপিলের জন্য ফের পেছালো অভিযোগ গঠন


❏ রবিবার, আগস্ট ২১, ২০১৬ Breaking News, জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর- নাইকো দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন পিছিয়েছে। এ বিষয়ে শুনানির জন্য আগামী ২ অক্টোবর পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন আদালত। রোববার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৯-এর বিচারক আমিরুল ইসলাম এ দিন ধার্য করেন।khaledaখালেদা জিয়ার অন্যতম আইনজীবী সৈয়দ জয়নুল অবেদীন মেজবাহ এ তথ্য জানান।

মেজবাহ জানান, আজ আমিরুল ইসলামের আদালতে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য দিন নির্ধারিত ছিল। কিন্তু খালেদা জিয়ার পক্ষে তাঁর আইনজীবী অভিযোগ গঠন পেছানোর জন্য সময়ের আবেদন করেন। হাইকোর্টে এ মামলার একটি আপিল বিচারাধীন থাকায় সময়ের আবেদন করা হয়। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে পরবর্তী দিন নির্ধারণ করেন।

প্রায় সাত বছর আটকে থাকার পর গত বছর জুনে মামলাটি পুনরায় সচল হওয়ার পর ২৮ ডিসেম্বর এবং চলতি বছর ১৭ ফেব্রুয়ারি, ১২ এপ্রিল, ৭ জুন ও ১১ জুলাই, ১০ অগাস্ট ও ১৬ অগাস্ট এই মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছায়।

সেনানিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় খালেদা জিয়া গ্রেপ্তার হওয়ার পর ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তার বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় এই মামলা করে দুদক। পরের বছর ৫ মে খালেদাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

এতে অভিযোগ করা হয়, ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিনটি গ্যাসক্ষেত্র পরিত্যক্ত দেখিয়ে কানাডীয় কোম্পানি নাইকোর হাতে ‘তুলে দেওয়ার’ মাধ্যমে আসামিরা রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার ক্ষতি করেছেন।

মামলা হওয়ার পর খালেদা জিয়া উচ্চ আদালতে গেলে ২০০৮ সালের ৯ জুলাই দুর্নীতির এই মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে হাই কোর্ট, সেই সঙ্গে দেওয়া হয় রুল।

প্রায় সাত বছর পর গত বছরের শুরুতে রুল নিষ্পত্তির মাধ্যমে মামলাটি সচল করার উদ্যোগ নেয় দুদক। রুলের ওপর শুনানি শেষে গত বছর ১৮ জুন খালেদার আবেদন খারিজ করে মামলার ওপর থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নেয় হাই কোর্ট।

ওই রায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়। সে অনুযায়ী গত বছর ৩০ নভেম্বর খালেদা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পান।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন, সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, সাবেক জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, সাবেক মুখ্যসচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব সি এম ইউছুফ হোসাইন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান, ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, ঢাকা ক্লাবের সাবেক সভাপতি সেলিম ভূঁইয়া ও নাইকোর দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ।