🕓 সংবাদ শিরোনাম

বিএনপি বাড়াবাড়ি করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী * ফরিদপুরে হাজিরা দিতে এসে আদালত প্রাঙ্গণে আসামীর মৃত্যু * ধান উৎপাদন বাড়াতে নানামুখী কার্যক্রম গ্রহণ করেছে সরকার * ২৬ শর্তে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি * ১০ টাকার টিকিট কেটে চোখ দেখালেন প্রধানমন্ত্রী * রসিক নির্বাচনে বিএনপির পর এবার সরে দাঁড়াল জামায়াত * নারায়ণগঞ্জে স্বপন হত্যায় একজনকে মৃত্যুদণ্ড, আরেকজনের যাবজ্জীবন * শরীয়তপু‌রে এল‌জিই‌ডি প্রকৌশলীর বিরু‌দ্ধে দুদ‌কে অ‌ভি‌যোগ * ৬৭ বছর বয়সে এসএসসি পাস করলেন শেরপুরের কালাম! * মিয়ানমার ভবিষ্যতে আকাশসীমা লঙ্ঘন না করার আশ্বাস দিয়েছে: বিজিবি প্রধান *

  • আজ মঙ্গলবার, ১৪ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ ৷ ২৯ নভেম্বর, ২০২২ ৷

পুলিশের কোলেই চেপে বসলেন মন্ত্রী


❏ সোমবার, আগস্ট ২২, ২০১৬ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের পান্না জেলার আমানগঞ্জ তেহসিল এলাকা। সোমবার ওই এলাকাটি পরিদর্শণে গিয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ চৌহান। তবে তিনি যে পথে গেছেন সেখানে পায়ের গিড়া পর্যন্তও পানি হবে না। আর সেই পথটুকু পার হতে পুলিশের কোলেই চেপে বসলেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর এমন অবস্থার এক ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বেশ সাড়া ফেলেছে।Picture21471843179প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে মধ্যপ্রদেশের বেশ কয়েকটি এলাকা বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। তবে রোববার পর্যন্ত বন্যাক্রান্ত রিওয়া, সাতনা ও পান্না জেলায় এখনো সফর করেননি মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপি শাসিত এই রাজ্যে ইতিমধ্যে বন্যায় ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার পান্না জেলার আমানগঞ্জ তেহসিল এলাকায় যান মুখ্যমন্ত্রী।

সরকারি সূত্র জানিয়েছে, পানিতে তলিয়ে যাওয়া ওই এলাকার রাস্তাটি দিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় কালেক্টর ও পুলিশ প্রধান মন্ত্রীকে কোলে তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তাদের আশঙ্কা পায়ের গিড়া পর্যন্ত ওই পানিতে নামলে মন্ত্রী হয়তো আঘাত পেতে পারেন অথবা তাকে সাপেও কামড়াতে পারে। তাই তারা দুই পুলিশ সদস্যকে মন্ত্রীকে কোলে তুলে নেওয়ার নির্দেশ দেন। মোবাইল ফোনে তোলা মন্ত্রীর এই ছবি ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে ।

গত সপ্তাহে, ভারতের স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে উড়িশার মন্ত্রী যোগেন্দ্র বেহারার পায়ে জুতা লাগিয়ে দেন তাঁরই এক নিরাপত্তাকর্মী। ক্যামেরায় ওই দৃশ্য ধরা পড়ার পর তা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়। ওই ঘটনার প্রতিক্রিয়ার উড়িশার ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি উদ্যোক্তামন্ত্রী বারবার দাবি করেন, ‘আমি একজন ভিআইপি।’ পরে অবশ্য ওই মন্ত্রী সুর পাল্টান। তিনি বলেন, নিরাপত্তাকর্মীটি তাঁর সন্তানের মতো। আর বাঁ পায়ের ব্যথার কারণে তিনি কোমর বাঁকাতে পারেন না।