গাইবান্ধায় চাঁদা দাবির অভিযোগে সাংবাদিক আটক


❏ সোমবার, আগস্ট ২২, ২০১৬ দেশের খবর, রংপুর

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধা জেলা শহরের বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টার মালিকের কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগে মোঃ শহিদুল ইসলাম নয়ন (৩২) নামে এক সাংবাদিককে আটক করেছে পুলিশ।

atok-atok

আজ সোমবার দুপুরে গাইবান্ধা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) মোঃ ফিরোজ কবীর বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিকদের অবগত করেন। আটক শহিদুল ইসলাম নয়ন ঢাকা থেকে প্রকাশিত ‘দুর্নীতির সন্ধান’ নামে একটি পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার। নয়নের বাড়ি গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার হরিপুর গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের নুরুন্নবী সরকারের ছেলে।

গাইবান্ধা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) ফিরোজ কবীর জানান, নয়ন ঢাকা থেকে গাইবান্ধা আসেন। এরপর তিনি সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে জেলা শহরের বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে গিয়ে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিলে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশেনের হুমকিও দেন তিনি। এমন অভিযোগে রবিবার রাতে শহরের আধুনিক সদর হাসপাতাল এলাকা তাকে আটক করা হয়।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় বাংলাদেশ ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনষ্টিক ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের গাইবান্ধা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন বিপ্লব নয়নের বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

বাংলাদেশ ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনষ্টিক ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন বিপ্লব জানান, সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে নয়ন শহরের বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে এসে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা না দিলে এসব ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের নামে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করার হুমকি দেয়। পরে বিষয়টি পুলিশকে অবগত করলে তাকে আটক করা হয়।

তবে আটক সাংবাদিক নয়ন অভিযোগ অস্বীকার করে স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, ‘তিনি ঢাকা থেকে প্রকাশিত ‘দুর্নীতির সন্ধান’ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার। গাইবান্ধার বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের রিপোর্ট করতে অফিস এ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে গাইবান্ধা আসেন’।

গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদী হাসান অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।