• আজ সোমবার, ১০ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২৪ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

শিমুলিয়া নৌরুটে বন্ধ হয়ে যেতে পারে ফেরী চলাচল নাব্যতা সঙ্কটে বন্ধ রয়েছে ৪টি রো রো ফেরী : বাড়ছে অচলাবস্থা


❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ২৩, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

dg


মোঃ রুবেল ইসলাম, (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

নাব্যতা সঙ্কটের কারণে শিমুলিয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরী চলাচলে বাড়ছে চরম অচলাবস্থা।এতে করে যে কোন মুহূর্তে বন্ধ হয়ে যেতে পারে এ নৌরুটের সকল প্রকার ফেরী চলাচল। আজ মঙ্গলবার নৌরুটে ৫টি ডাম্পু ,৪টি কে টাইপ ও একটি ছোট ফেরী কর্ণফুলী ও একটি মিডিয়াম ফেরী ফরিদপুরসহ মোট ১১টি ফেরী বর্তমানে সচল থাকলেও তা চলাচলেও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা দেখা দিয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।পদ্মায় অব্যাহতভাবে পানি হ্রাস,স্রোতের তীব্রতায় ধেয়ে আসা অসংখ্য পলিতে শিমুলিয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটে প্রকট আকারে দেখা দিয়েছে নাব্যতা সঙ্কট।

এর আগে প্রচন্ড ঝুঁকির মুখে সোমবার সকাল ৭টা থেকে এ রুটের ৪টি রো রো ফেরী বন্ধ রেখেছে সংশ্লিষ্ট ফেরী কর্তৃপক্ষ। আগের দিন হালকা লোডেও এসব রো রো ফেরীগুলো নৌরুটে চলতে পারছিল না।এদিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মঙ্গলবার দুপুরে শিমুলিয়া ঘাটে ১শত ৮০টি পণ্যবাহী ট্রাকসহ সবমিলিয়ে ২শত যানবাহন ফেরী পারাপারের অপেক্ষায় ছিল।এতে করে দক্ষিণাঞ্চলগামী যাত্রীরা ফেরীঘাটে পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ ।

এদিকে নাব্যতা সঙ্কট নিরসনে গত ৪আগষ্ট থেকে প্রথম পর্যায়ে নৌরুটের লৌহজং টার্নিংয়ে সৃষ্ট ডুবোচরটিতে পলি অপসারণ করা হচ্ছে।এ পয়েন্টে বিআইডব্লিউটিএর মোট ৬টি ড্রেজার দিয়ে পলি অপসারণ কাজ চলমান রয়েছে।তবে লৌহজং টার্নিংয়ে পদ্মার স্রোতের কারণে পলি অপসারণ কাজ বিঘিœত হচ্ছে বলে গতকাল মঙ্গলবার বিআইডব্লি¬উটিএর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (ড্রেজিং) সাইদুর রহমান জানান।অন্যদিকে পলি অপসারণ কাজের আজ ১৯দিন অতিবাহিত হলেও নৌরুটে নাব্যতা সঙ্কট দিন দিন বেড়েই চলেছে।

মাওয়া বিআইডব্লিউটিসির সহকারী মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) খন্দকার খালিদ নেওয়াজ জানান,লৌহজং টার্নিংয়ের মুখে সর্বনিম্ন পানির গভীরতা মাত্র সাড়ে ৬ফুট থাকলেও রো রো ফেরীগুলোর সর্বনিম্ন ড্রাফট ৭ফুট প্রয়োজন।তাই এখানে নাব্যতা সঙ্কট প্রকটভাবে দেখা দেওয়ায় রো রো ফেরীগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে।তবে ডাম্ব ও কে টাইপ ফেরীগুলো এখন পর্যন্ত সচল রাখা সম্ভব হলেও এসব ফেরী চলাচলেও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা দেখা দিয়েছে