• আজ সোমবার, ১০ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ২৪ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

‘নেতৃত্বশূন্য করতেই জোট সরকার গ্রেনেড হামলা চালিয়েছে’


❏ মঙ্গলবার, আগস্ট ২৩, ২০১৬ Breaking News, জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর – স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা যে বিএনপি-জামায়াত জোট চালিয়েছে তা ধ্রুব সত্য এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাসহ দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে হত্যা করার জন্যই জঘন্য এই হামলা করা হয়।

আজ মঙ্গলভার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সংবাদ চিত্র প্রদর্শনীতে বক্তব্যে একথা বলেছেন মন্ত্রী। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী যুবলীগ এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘প্রত্যেকটা আক্রমণেরই প্রতি আক্রমণ হয় এবং এটা ধ্রুব সত্য। বিএনপি-জামায়াত যে অ্যাকশন নিয়ে আমাদের নেত্রীকে হত্যা করতে ছেয়েছিল ততটাই শক্তিশালী হয়ে জাতি তা প্রতিহত করেছে। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার জজমিয়া নাটক সাজিয়ে কাউকে বিশ্বাস করাতে পারেনি। বিএনপি জামায়াতের পক্ষেই সম্ভব বিরোধীদলকে নিশ্চিহৃ করার লক্ষ্যে এই জঘন্য কাজে লিপ্ত হওয়া।’

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আগস্ট মাসটা আওয়ামী লীগের জন্য বিয়োগান্তক মাস। এ মাসেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। এই মাসেই তাঁর কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে তাঁর উপর গ্রেনেড হামল করা হয়।’

khondokar-mosharrof

মন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ হচ্ছে জনগণের দল। জনগণের কল্যাণের জন্যই এই দল গঠিত হয়েছে। জনগণ এ দলকে ভালোবাসে, কারণ বঙ্গবন্ধুর কন্যার নেতৃত্বে দলটি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে দেশ পরিচালনা করছে এবং আর এ করণেই দেশ আজ নি¤œ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে।’

বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের প্রতি আলোকপাত করে মন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু যে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি-এই স্বীকৃতি আওয়ামী লীগ দেয়নি। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ‘বিবিসি বাংলা’ সারা বিশ্বের বাংলাভাষীদের উপর পরিচালিত জরিপের ওপর ভিত্তি করে তাঁকে এই স্বীকৃতি দেয়া হয়। এটাকে চ্যালেঞ্জ করার কেউ নেই। কিন্তু ৭৫ এর পরবর্তী সময়ে এই নামটা পর্যন্ত তারা নেয়নি এবং নিতে দেয়া হয়নি। পরে জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে বঙ্গবন্ধুর কন্যা দেশ শাসনের দায়িত্ব পাওয়ার পর সবকিছু পাল্টে যায়।’ স্থানীয় সরকারমন্ত্রী এসময় যুবলীগকে পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ যুব সংগঠন হিসাবে আখ্যায়িত করেন।

সংগঠনের সভাপতি ইসমাঈল হোসেন স¤্রাটের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, যুবনেতা শহীদ সেরনিবায়াত, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, আব্দুস সাত্তার, মহিউদ্দিন আহমেদ মহি প্রমুখ।