চরফ্যাশন সেবা মেডিকেল সার্ভিসের মালিকসহ ৯জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা


❏ বুধবার, আগস্ট ২৪, ২০১৬ বরিশাল

এস আই মুকুল, ভোলা প্রতিনিধি চরফ্যাশন সেবা মেডিকের সার্ভিসের মালিক শাহজানসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে আকতার হোসেন বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আব্দুল্লাহপুরের আকতার হোসেন বাদী হয়ে ময়না বেগম ও শাহাজানসহ ৯জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছে। তিনি বলেন, মেডিকেল সার্ভিসের মালিক শাহাজান,ময়না বেগম,সিরাজুল ইসলাম আলম, রিজিয়া বেগম, আলাউদ্দিন, শাহাবুদ্দিন, ইকবাল, মাসুদা, মোরশেদার যোগসাজসে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ইসমাইল হোসেন রাসেলের ওরষজাত সন্তানকে হত্যা করে ফেলে এবং ময়না তদন্ত ছাড়াই সন্তানের পিতাকে না জানিয়ে সিরাজুল ইসলাম মসজিদের পাশে কবর দেয়া হয়েছে। রাছেল অভিযোগ করে বলেন, হাসপাতাল রোডে অবস্থিত সেবা মেডিকেল সার্ভিসের মালিক শাহাজান ০৮ জুলাই ২০১৬ইং তারিখে ময়না বেগমকে ভর্তি করেন। সেখান থেকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়া ভূয়া সিজার দেখাইয়া নিয়া এ হত্যা করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করছেন।

জানা যায়, আবদুল্লাপুর ইউপি‘র সাবেক চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন রাসেলের সাথে আবদুল্লাহপুর ৬নং ওয়ার্ডের সিরাজুল ইসলাম আলমের কন্যা ময়না বেগমের সাথে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক ৪ বছর পূর্বে বিবাহ সম্পন্ন হয়। ইসমাইল হোসেন রাসেলের স্ত্রী ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা থাকে। উক্ত শত্রুরা বিপদগ্রস্থ করতে রাছেলকে না জানিয়ে হত্যার পরিকল্পনা করেই হত্যার ঘটনা ঘটায়। বিষয়টি চরফ্যাশন থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ মামলা গ্রহণ না করায় আক্তার হোসেন চরফ্যাশন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সি.আর ২২২/১৬ মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আদালত আমলে নিয়ে চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জকে এফআইআর করার নির্দেশ প্রদান করেন। অফিসার ইনচার্জ ১৯ আগস্ট ২০১৬ তারিখে ৩১৫/৩১৬/৩০২/৩৪ দঃ বিঃ একই উদ্দেশ্যে শিশু জম্মের পর মৃত ঘটাইবার উদ্দেশ্যে কৃতকার্য করিয়া মৃত্যু ঘটাইয়া হত্যা কান্ড করার অপরাধে মামলাটি রুজু করা হয়।

mamlaএদিকে ইসমাইল হোসেন রাসেল জানান, আমার সন্তানকে সেবা মেডিকেল সার্ভিসের মালিক শাহাজানসহ উক্ত আসামীদের যোগসাজসে হত্যা করা হয়েছে। আমি উক্ত হত্যার বিচার দাবী করছি। চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জ এনামুল হক জানান, মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চরফ্যাশনে ২ লাখ টাকার মাছ বিষ প্রয়োগ করে বিনষ্ট

চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিণ আইচা থানার নজরুল নগর ইউনিয়নে ৬ নং ওয়ার্ডে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়ে মিজানুর রহমান মিজানের মাছের ঘেরে বিষ প্রয়োগ করে প্রায় ২লাখ টাকার বিভিন্ন প্রজাতির মাছের পোনা বিনষ্ট করছে। মিজান ইউপি নির্বাচনের প্রতিপক্ষ আলাউদ্দিন গংদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দাখিল করেছেন

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, তিনি মাছের ঘেরসহ জমি ক্রয় করে ঘেরে মাছের চাষ করা করলে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এলাকার নির্বাচনী প্রতিদ্বন্ধীর লোক বেল¬াল বিষ প্রয়োগ করে মাছ বিনষ্ট করে। সকাল বেলা এলাকার বাবুল পাটওয়ারী তাকে ফোনে জানালে মিজান ইউপি সদস্য আলাউদ্দিন কে জানান এবং সন্দেহজনক বেলালের নাম বললে আলাউদ্দিন মিজানের উপর ক্ষেপে গিয়ে বাক বিতন্ডা হয়।

বেল¬ালের সাথে আলাপ করলে তিনি জানান, আমি মাছের ঘেরে বিষ প্রয়োগ বিষয়ে কিছু জানি না। মিজান অভিযোগ করেন, উক্ত জমি আমি ক্রয় করার আগে বেল¬াল জমিটি ক্রয় করতে চেয়েছিল, সে জমি ক্রয় করতে না পারায় এবং ইউপি সদস্য আলাউদ্দিন আমার প্রতিপক্ষ হওয়ায় ২লাখ টাকার মাছ বিষ প্রয়োগ করে বিনষ্ট করেছে। ইউপি সদস্য আলাউদ্দিনের সাথে আলাপ করলে তিনি জানান, সকালে আমাকে ফোনে আমার ভাগ্নে ঘটনাটি জানিয়েছে। তবে শক্রতাবশত বিষ প্রয়োগ করে ঘেরের মাছ নষ্ট করেছে।