🕓 সংবাদ শিরোনাম

এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েও অর্থের অভাবে উচ্চ শিক্ষা অনিশ্চিত শুভ’রমহামারি এখনই শেষ হচ্ছে না, সৃষ্টি হতে পারে নতুন ভ্যারিয়েন্ট: টেড্রোসখাগড়াছড়িতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২নৌকা থেকে লাফিয়ে পালালো পাচারকারী, বিপুল আইস-ইয়াবা উদ্ধারশাবি উপাচার্যের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ শিক্ষার্থীদেরমালয়েশিয়ায় প্রতারণার অভিযোগে নাবিস্কো ভাইয়া গ্রুপের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনবিএনপি বহিষ্কার করলেও অন্য দলে যোগ দেব না: তৈমূরগ্লাস সুমনের মাদক কারবারের প্রধান সহযোগী গ্রেফতারমনোহরদীর দরগাহ মেলা শুরু, নজর কাড়ছে বড় মাছের বাজারঅস্ত্রসহ আটক ছাত্রলীগ নেতা পরিচয়দানকারী রিজনের অপকর্মনামা

  • আজ বুধবার, ৫ মাঘ, ১৪২৮ ৷ ১৯ জানুয়ারি, ২০২২ ৷

বঙ্গবন্ধু হত‌্যা মামলার বাদী মুহিতুল আর নেই


❏ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২৫, ২০১৬ Breaking News, ফিচার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সময়ের কণ্ঠস্বর- বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বাদী আফম মুহিতুল ইসলাম মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালীন তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর। মরহুম মুহিতুল ইসলামের দুটো কিডনিই সম্পূর্ণ বিকল ছিল। এছাড়াও তিনি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত ছিলেন। muhitul-alam+bangladesh_23233_1472117715বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের ট্রেজারার অধ্যাপক মো. আলী আজগর মোড়ল এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গত ১০ আগস্ট থেকে বিএসএমএমইউতে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন তিনি। তার জন্য মেডিকেল বোর্ডে গঠন করে প্রয়োজনীয় সব ধরনের চিকিৎসা দিয়েও চিকিৎসকরা ভরসা পাচ্ছিলেন না; সঙ্কটাপন্ন হওয়ায় তাকে বিদেশেও নেওয়া যায়নি।

জানা গেছে, কিছুদিন আগে মুহিতুল ইসলাম কিডনির সমস্যা নিয়ে বিএসএমএমইউর নেফ্রোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলমের অধীনে ভর্তি হন। পরবর্তীতে তাঁকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেবিন ব্লকের আইসিইউতে চিকিৎসা দেয়া হয়। সেখানে অবস্থার উন্নতি হলে কেবিনে নেয়া হয়। ফের অবস্থার অবনতি হলে গত ২৬ জুলাই পুনরায় আইসিইউতে নেয়া হয় এবং শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত সেখানেই চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাষ্ট্রপতি থাকার সময় তার রিসিপসনিস্ট কাম রেসিডেন্ট পিএ ছিলেন মুহিতুল। তিনি সর্বশেষ ত্রাণ ও দুর্যোগ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত‌্যাকাণ্ডের সময় তিনি ধানমণ্ডির ওই বাড়িতেই ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু হত‌্যাকাণ্ডের বিচারের বাধা কেটে যাওয়ার পর ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় মামলা করেন মুহিতুল। বিচার প্রক্রিয়া শেষে পাঁচ আসামির মৃত‌্যুদণ্ড ইতোমধ‌্যে কার্যকর হয়েছে। তবে দণ্ডিত বেশ কয়েকজন এখনও পলাতক।