সংবাদ শিরোনাম
সোলাইমানিকে হত্যার প্রধান কারিগর নিহত! | ফিলিস্তিনিদের ট্রাম্পের কথিত ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ প্রত্যাখ্যান | আজহারী জামায়াতের প্রোডাক্ট: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী | ফেলে যাওয়া সেই নবজাতককে দত্তক নিলেন ডিসি | চাঁদপুরে অসময়েও ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, দামও কম | ঠাকুরগাঁওয়ে দা দিয়ে কুপিয়ে বাবাকে হত্যা করল ছেলে! | সুন্দরবনে আড়াই দিন আমার জীবনের এক অনন্য অভিজ্ঞতা: মার্কিন রাষ্ট্রদূত | কাস্টম হাউসের ভোল্ট ভেঙে ৮ কোটি টাকার সোনা চুরি, ৫ জন আটক | ১ হাজার কোটি টাকা মেগা প্রকল্প গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ড | রংপুরে ডাকঘরে সাংবাদিকদের উপর হামলা, চার কর্মকর্তা প্রত্যাহার |
  • আজ ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

স্বপ্ন যদি হয় এশিয়ার হৃদপিণ্ড মালেয়শিয়া ভ্রমণ! (শেষ পর্ব)

৮:২১ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, আগস্ট ৩০, ২০১৬ তথ্য জাদুঘর, লাইফস্টাইল

মালেয়শিয়া

সাইফুল ইসলাম মজুমদার, লাইফস্টাইল কন্ট্রিবিউটার, সময়ের কণ্ঠস্বর। গত লেখায় আপনাদের জানিয়েছিলাম কিভাবে মালেয়শিয়া যাবেন, গিয়ে কোথায় থাকবেন আর কোথায় থাকবেন। মালেয়শিয়ায় যেহেতু ঘুরতেই যাচ্ছেন তো ঘুরাঘুরি নিয়ে না জানলেই নয়। তবে দেরী না করে চলুন আপনাদের নিয়ে যাই মালেয়শিয়ার অলিতে গলিতে।

কোথায় ঘুরবেন: মালেয়শিয়া এমন একটা দেশ যেখানে আপনি যতই ঘুরুননা কেন বেলা শেষে মনে হবে ইশ! যদি আরো কিছু যায়গা ঘুরা যেত। কি নেই এখানে? আপনি পাহাড়ের কোল ধরে কোন জঙ্গলে হারিয়ে যেতে চান সেটা যেমন পারবেন; আবার যদি চান সমুদ্রে হারিয়ে যেতে সেটাও সম্ভব।

মালয়েশিয়ায় আছে অসংখ্য দর্শনীয় স্থান। আমি নিচে কুয়ালামপুর শহরের দর্শনীয় স্থানের কথা উল্লেখ করছি। যেগুলো মিস করলে হয়ত ট্যুর শেষে আপনার আফসুসটা রয়ে যাবেঃ

পেট্রোনাস টাওয়ারঃ এটি টুইন টাওয়ার নামেও পরিচিত; শহরের একদম প্রান কেন্দ্রের এই বিল্ডিংটি ঘিরে সবসময়ই লেগে থাকে ট্যুরিস্টদের জট। এখানে আছে অনেক নামিদামি ব্র্যান্ডের শো-রুম। ঘুরার সাথে এখান থেকে কিনে নিতে পারেন প্রিয় জনের জন্য গিফট।

বুকিট বিনটেজঃ শপিং করার জন্য এই স্থানটি হতে পারে আপনার জন্য সবচেয়ে পছন্দের। কুয়ালালামপুর শহরের মধ্যেই এই দৃষ্টিনন্দন এই স্থানটি নিয়ে আসতে পারে আপনার ট্যুরে অন্যরকম এক স্বাদ।

কুয়ালালামপুর বার্ড পার্কঃ পাখিদের সাথে খেলা আর স্মৃতির পাতায় ট্যুরটাকে আটকে রাখতে আপনি চলে যেতে পারেন এই পার্কটিতে। কুয়ালালামপুর শহরেই সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকে পার্কটি। প্রিয়জনের সময়টাকে শ্রেষ্ঠ করে তুলতে তাকে এখানে ঘুরিয়ে আনতে পারেন।

কুয়ালামপুর টাওয়ারঃ কানাডার সিএন টাওয়ার কিংবা নিউজিল্যান্ডের স্কাইটাওয়ারের স্বাদ নিয়ে আসতে পারেন এই টাওয়ারটি থেকে। কুয়ালালামপুর শহরের এই জায়গাটি মিস করলে আপনার ট্যুর পূর্নতা পাবেনা।

অ্যাকুরিয়া কুয়ালামপুরঃ সাগরে ডুবন্ত অবস্থায় হাটার স্বাদ নিয়ে আসতে পারেন এখান থেকেই। প্রিয়জনের হাত ধরে নীল পানির নিচে হাটাটা আপনার ট্যুরকে করে তুলবে আরো এডভেঞ্জার ময়।

বাটু ক্যাবসঃ শহর থেকে ট্রেন ধরে সোজা চলে যান এই স্থানটিতে। সাউথ ইন্ডিয়ানদের অভয়ারণ্য এই স্থানটি দিতে পারে আপনাকে ভৌতিক এডভেঞ্চার। ২৭০ টি সিড়ি বেয়ে দেখে আসতে পারেন ঐতিহ্যবাহী গুহা আর মন্দির। আর অজগর গলায় নিয়ে ছবি তুলতে ভুলবেননা যেন।

এছাড়াও ঘুরে আসতে পারেন চেন সি সো ইয়েন হাউস,মেনারা অলিম্পিয়া,ন্যাশনাল আর্ট গ্যালারি,পুত্রজায়া ব্রীজ,রয়্যাল প্যালেস,এগ্রিকালচারাল পার্ক,ন্যাশনাল বোটানিক্যাল গার্ডেন,অর্কিড পার্কপ্রভৃতি জায়গা। এছাড়া দেখতে পারেন মালেশিয় সংস্কৃতি,হস্তশিল্পের নানা নিদর্শন। এছাড়াও রয়েছে কর্মাশিয়াল সেন্টার,ইন্ডিপেণ্ডেন্ট স্কোয়ার,কিংস প্যালেস,ন্যাশনাল মিউজিয়াম,ইসলামিক আর্ট মিউজিয়াম,হাউস অব পালার্মেন্ট।

মালয়েশিয়া গিয়ে লাঙ্কাউইতে যদি না যান তবে আপনার মালয়েশিয়ায় ঘুরতে যাওয়াটাই বৃথা। লাঙ্কাউইতে বিনোদনের সবকিছুই আপনি পাবেন কেবল কার, ঝরনা, সমুদ্রের নিচ দিয়ে রাস্তা, ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট আরও অনেক কিছু। লাঙ্কাউই যাত্রা পথে অসাধারণ সৌন্দর্য দেখে মুগ্ধ হয়ে যাবেন। বিশেষ করে রাস্তার ধারে অসংখ্য পাম ট্রি দেখে।

এছাড়াও মালয়েশিয়া দেখতে যেতে পারবেন গেন্টিং হাইল্যান্ড, ,ওয়াটার ওয়ার্ল্ড, দ্বীপ মাবুল, পেনাং আরও অনেক কিছু। আগের লেখাটি না পড়লে পড়ে নিন সেটি এই লিঙ্ক থেকে ->

http://www.somoyerkonthosor.com/2016/08/29/33255.htm

Loading...