🕓 সংবাদ শিরোনাম

কর্ণফুলী থানার পাশেই ছুরিকাঘাতে যুবক খুন সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করায়  ‘মিডিয়া এডুকেটরস নেটওয়ার্ক’ এর প্রতিবাদসাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে আমিরাতে সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সভাকক্সবাজারে বিপুল সিগারেটসহ ৩ যুবক আটকরোজিনার সঙ্গে যারা অন্যায় করেছে, তাঁদের জেলে পাঠান: ডা. জাফরুল্লাহকেরানীগঞ্জে ফ্ল্যাট থেকে যুবতীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারপাটগ্রাম সীমান্তে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে নারী ও শিশুসহ ২৪জন আটকসাংবাদিকদের ভয় দেখিয়ে সরকার গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়: ভিপি নুরসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নয়, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: হানিফআর এমন ভুল হবে না: নোবেল

  • আজ বুধবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৯ মে, ২০২১ ৷

মেয়র আরিফের জামিন আপিলেও বহাল


❏ বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৬ Breaking News, জাতীয়

সময়ের কণ্ঠস্বর- সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র (বরখাস্তকৃত) আরিফুল হক চৌধুরীকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

6b8dc05e4d162886ffbc53012a89136e-56f9248721ceaবৃহস্পতিবার জামিন স্থগিতে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন খারিজ করে দিয়ে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এই আদেশ দেন

আদালতে মেয়র আরিফুল হকের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেন, সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুল হালিম কাফি। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা।

গতকাল ৭ সেপ্টেম্বর মেয়র আরিফুল হকের হাইকোর্টের জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষ। এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়ার হাইকোর্ট বেঞ্চ আরিফুলকে জামিন দিয়েছিলেন। তবে একই ঘটনায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা মামলায় গ্রেফতার আছেন আরিফুল। তাই আপাতত মুক্তি পাচ্ছেন না তিনি।

চলতি বছরের ২২ মার্চ মায়ের অসুস্থতার কারণে হাইকোর্টের অপর একটি বেঞ্চ মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে ১৫ দিনের জন্য জামিন দিয়েছিলেন। জামিনে মুক্তির পর ১০ এপ্রিল আবার দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করলে তাকে কারাগারে পাঠায়। এরপর থেকে তিনি কারাগারেই আছেন।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, ২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জ সদরের বৈদ্যের বাজারে ঈদ পরবর্তী এক জনসভা শেষে বের হওয়ার পথে গ্রেনেড হামলার শিকার হন সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া। সেই হামলায় গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এই মামলার প্রথম দফায় দেয়া অভিযোগপত্রে আরিফুলের নাম ছিল না। তবে সংশোধিত সম্পূরক অভিযোগপত্রে মেয়র আরিফুলের নাম আসে।