জঙ্গি অর্থায়নে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ দেশের তালিকা থেকে বাংলাদেশ বাদ


❏ বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৬ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- জঙ্গি অর্থায়নে ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকা থেকে বাংলাদেশকে বাদি দিয়েছে এশিয়া প্যাসিফিক গ্রুপ অন মানি লন্ডারিং (এপিজি)। এপিজি হচ্ছে ‘অর্থ পাচার ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে অর্থায়ন’ বিষয়ে মানদণ্ড নির্ধারণকারী এশিয়া অঞ্চলের সংস্থা। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৪১টি দেশ এর সদস্য।

059cb31f0cd0d62d2a338bc2ffc6fee7-57d11e7446eb1যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের সান ডিয়াগোতে গত ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত এপিজির সম্মেলেনে ঝুঁকিপূর্ণ তালিকা থেকে বাংলাদেশ বাদ দেয়া হয়। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, এপিজির সম্মেলনে বাংলাদেশকে নিয়ে প্রতিনিধিরা যে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে তা সন্তোষজনক হওয়ায় ঝুঁকিপূর্ণ তালিকা থেকে বাংলাদেশকে বাদ দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ৫ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান দিয়াগো শহরে এপিজি’র বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে বাংলাদেশ থেকে অংশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা।

এই সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশে। কিন্তু গুলশান হামলার পর এপিজির বার্ষিক সভাটি ২ মাস পেছানো হয়। ঢাকার পরিবর্তে ভেন্যু করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।

অবশ্য ২০১৫ সালের অক্টোবরে বাংলাদেশ সফরে এসে অর্থ পাচার ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধে নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ ও বাস্তবায়ন খতিয়ে দেখে এপিজি যে খসড়া মূল্যায়ন প্রতিবেদন তৈরি করেছিল, তাতে বাংলাদেশ ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় যাওয়ার কথা বলা হয়েছিল।

বাংলাদেশ ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় যাওয়া প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) মহাব্যবস্থাপক দেবপ্রসাদ দেবনাথ তখন বলেছিলেন, ‘এপিজি চূড়ান্ত প্রতিবেদনে বাংলাদেশের জন্য সুসংবাদ থাকার সম্ভাবনা বেশি। যদিও ঢাকায় এপিজির বার্ষিক সভাটি বাতিল হওয়ায় কিছুটা অনিশ্চয়তা দেখা দেয়।

সর্বশেষ চলতি বছরের মে মাসের শুরুতে এপিজির ৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ঢাকায় এসেছিল। তখন অর্থ পাচার ও জঙ্গি অর্থায়ন প্রতিরোধসহ বিভিন্ন ইস্যুতে এপিজি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে টানা ১৬টি বৈঠক করে বিএফআইইউ।