• আজ বৃহস্পতিবার। ২৩শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সকাল ৬:১৩

বাংলাদেশ সফরে আসছেন না অধিনায়ক মরগান!

⏱ | শনিবার, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৬ 📁 খেলা, স্পট লাইট

স্পোর্টস আপডেট ডেস্ক – শুরুতে কিছুটা ধোঁয়াশা ছিল। কিন্তু এউইন মরগান যে বাংলাদেশে আসতে চান না, সেটি প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল গত বুধবারই। এদিকে বাংলাদেশ সফরে আসার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে ইংলিশ ক্রিকেটারদের সময় বেধে দেয়া হয়েছিল শনিবার পর্যন্ত। সেই সময় শেষ হওয়ার আগেই দলের অধিনায়ক ওয়েন মরগান জানিয়ে দিয়েছেন আসছেন না তিনি। ব্রিটিশ দৈনিক দ্য টেলিগ্রাফের তথ্য অনুযায়ী তার বদলে ওয়ানডে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছেন দলের সহ-অধিনায়ক জস বাটলার।

ইংলিশ গণমাধ্যমগুলো বলছে, উপমহাদেশে ক্রিকেট খেলতে এসে পাওয়া দুটি অতীত অভিজ্ঞতাই মরগানকে বাংলাদেশে না আসার ব্যাপারে প্রভাবিত করেছে। অভিজ্ঞতার একটি আবার এই বাংলাদেশে এসেই পেয়েছিলেন তিনি

এর আগে মরগান তার সর্বশেষ প্রতিক্রিয়ায় বলেছিলেন, ‘ক্রিকেটে মন দিতে হলে আগে স্বস্তিতে থাকা প্রয়োজন। আগেও এমন ঘটনার ক্ষেত্রে আমার মনোযোগে বিঘ্ন ঘটেছে। সেটিও নিরাপত্তাজনিত কারণেই ঘটেছিল। তখন থেকেই নিজেকে আবারো এমন পরিস্থিতিতে ঠেলে না দেওয়ার ব্যাপারে ভেবেছি। কারণ ক্রিকেট মানে অন্যকিছু নিয়ে দুশ্চিন্তা নয়। সবার আগে খেলাটায় পূর্ণ মনোযোগ দিতে পারা।’

morgan

ইংলিশদের ওয়ানডে অধিনায়ক ২০১৩ সালে প্রিমিয়ার ডিভিশনে গাজী ট্যাংক ক্রিকেটার্সের হয়ে ৫টি ম্যাচে খেলে গেছেন। তখন বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ছিল উত্তপ্ত। পেট্রল বোমার বিভীষিকাময় আতঙ্কে তখন দেশ। সেই অভিজ্ঞতাই ভাবাচ্ছে মরগানকে।

অন্য অভিজ্ঞতাটি ২০১০ সালে আইপিএল খেলার সময় হয় মরগানের। সেবার বেঙ্গালুরুতে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে ভীতিকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছিলেন তিনি। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে ম্যাচের আগে চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের বাইরে দুটি বোমা বিস্ফোরিত হয়। গুরুতর কোনো ক্ষতি না হলেও ম্যাচ শেষে সোজা বিমানবন্দরের পথ ধরেছিলেন মরগান। সেই ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত ঠিকঠাকভাবে হলেও মরগানের মনে গভীর ছাপ রেখে গেছে।

এছাড়া গত জুলাইয়ে ঢাকায় সন্ত্রাসী হামলার প্রেক্ষিতে ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরই অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে গিয়েছিল। পরবর্তীতে ক্রিকেটার থেকে শুরু করে সাংবাদিক এমনকি বিদেশী সমর্থকদেরও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আশ্বাস দেয়া হলে এবং নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দলের ইতিবাচক প্রতিবেদন পাওয়া গেলে সফরে আসার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড

(ইসিবি)। তবে সন্ত্রাসী হামলার পর একেবারে দুশ্চিন্তামুক্ত হতে পারেননি মরগানের মতো অনেক ইংলিশ ক্রিকেটার।

এসব মিলিয়েই মরগান বাংলাদেশে না আসার সিদ্ধান্তটি নিয়েছেন। শনিবার থেকেই বাংলাদেশ সফরের ক্যাম্প শুরু করতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড দল। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত দল জানাবে ইসিবি। তবে শনিবার ইংলিশ বোর্ডের পরিচালক অ্যান্ড্রু স্ট্রাউসের চুক্তিভুক্ত খেলোয়াড়দের সঙ্গে লাফবরোর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমিতে বৈঠক করার কথা রয়েছে। সেখানেই ক্রিকেটাররা তাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানালে আসন্ন বাংলাদেশ সফরে ইংল্যান্ড দল সম্পর্কে সার্বিক ধারণা পাওয়া যাবে।