• আজ রবিবার,২৬ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ৯ মে, ২০২১, রাত ১০:৪৫

সরকারের কাছে ৫টি প্রশ্নের জবাব চেয়েছেন ডা. জাকির

❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৬ Breaking News, আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক – বিতর্কিত ইসলামি বক্তা ডা. জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে আনীত বেশ কয়েকটি অভিযোগ নিয়ে ভারতে তদন্ত চলছে। এ নিয়ে সরকারের কাছে একটি খোলা চিঠি দিয়েছেন নায়েক। চিঠিতে কেন তাকে ড. সন্ত্রাসী আখ্যা দেওয়া হয়েছে- তার ব্যাখ্যা চেয়েছেন তিনি।

আজ রোববার ভারতের এনডিটিভি, টাইমস অব ইন্ডিয়া, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, দ্যা হিন্দুসহ বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রতিবদনে বলা হয়েছে, ভারতের মুম্বাই থেকে প্রকাশিত ৪ পৃষ্ঠার ওই চিঠিতে সরকারের কাছে তিনি ৫টি প্রশ্নের জবাব চেয়েছেন। তিনি জানতে চেয়েছেন তাকে কেন ডা. সন্ত্রাসী বলা হয়েছে।

জাকির নায়েক লিখেছেন, আমি গত ২৫ বছর যাবৎ বক্তব্য দিচ্ছি। কিন্তু কেন এখন আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হচ্ছে? বিশ্বের ১৫০টি দেশ আমাকে সম্মান করে কিন্তু অত্যান্ত দুঃখের বিষয় হচ্ছে নিজ দেশেই আমাকে ‘জঙ্গিবাদের প্রচারক’ বলছে।

বিতর্কিত এই ইসলামি বক্তা বলেন, আগে আমার বিরুদ্ধে একটি পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হয়েছে। সেখানে সরকারের কোনও এজেন্সী কোনও ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রমাণ পায়নি। তা স্বত্বেও এখনও কেনও তদন্ত চলছে?

dr-jakir-nayek

সম্প্রতি জাকির নায়েকের এনজিও ইসলামিক রিসার্ট ফাউন্ডেশনের (আইআরএফ) বিরুদ্ধে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অনুদান গ্রহণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সরকারে কাছে জাকির নায়েক প্রশ্ন তুলেছেন, ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের লাইসেন্স কেন সরকার নবায়ন করল আবার কেনইবা তা বাতিল করল।

বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় অবস্থান করা জাকির নায়েক জানিয়েছেন, এ বছর তিনি ভারতে ফিরবেন না। তিনি বলেন, এই আঘাত শুধু আমার না এটা গোটা ভারতের মুসলিমদের ওপর আঘাত। এটা শান্তি, গণতন্ত্র এবং ন্যায় বিচারের ওপর আঘাত।

উল্লেখ্য, জুলাইতে গুলশান হামলার ঘটনায় হামলাকারীদের অন্তত দুইজন জাকির নায়েককে অনুসরণ করত বলে অভিযোগ ওঠার পর এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। এছাড়া ভারতে বিভিন্ন সময়ে আটক হওয়া জঙ্গিরাও জাকির নায়েককে অনুসরণ করতেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ ঘটনার জের ধরে সম্প্রতি ভারত ও বাংলাদেশে জাকির নায়েকের পিসটিভি বন্ধের ঘোষণা দেয় দুই দেশের সরকার। এরপরই ভারত সরকার তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে।

এদিকে, ২০১১ সালে জাকির নায়েকের এনজিও ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন (আইআরএফ) নিয়ম ভঙ্গ করে রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনকে ৫০ লাখ রুপি অনুদান দিয়েছে। এ নিয়ে শনিবার ভারতের অন্যতম পত্রিকা দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়াসহ কয়েকটি গণমাধ্যম প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

গত ১৯ আগস্ট আইআরএফ-এর এফসিআরএ রেজিস্ট্রেশন নবায়ন করা হয়। চলতি মাসে এ বিষয়টি সামনে উঠে আসে। এরপরই এমএইচএ’র তিনজন কর্মকর্তাকে দায়িত্বে অবহেলার জন্য সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।