• আজ বৃহস্পতিবার, ৩০ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ১৩ মে, ২০২১ ৷

‘যতই ষড়যন্ত্র হোক দেশের অগ্রগতি কেউই থামাতে পারবে না’


❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৬ Breaking News, ফিচার

সময়ের কণ্ঠস্বর- জঙ্গিবাদ একটি বিশ্বজনীন সমস্যা। ‘এ জন্য যার যার জায়গা থেকে কাজ করতে হবে। প্রত্যেকের অবস্থান থেকে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে। যারা জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে জড়িত তারা শান্তির ধর্ম ইসলামকে হেয় করতে চায়। যতই ষড়যন্ত্র হোক দেশের অগ্রগতি কেউই থামাতে পারবে না। দেশ এগিয়ে যাবেই।’

pmo3350_165488আজ মঙ্গলবার সকালে গণভবনে ঈদুল আজহা উপলক্ষে আওয়ামী লীগের নেতাসহ সর্বস্তরের নাগরিকদের পর ঢাকায় কর্মরত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত এবং উচ্চ আদালতের বিচারপতিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ ভালো আছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আগামীকাল (১৪ সেপ্টেম্বর) আমি দেশের বাইরে যাচ্ছি জাতিসংঘে অংশ নেওয়ার জন্য। সেখানে দেশ ও জনগণের কথা বলব।’ এ জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়াও কামনা করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের নবী করিমও (সা.) বলে গেছেন, নিরীহ মানুষকে যেন হত্যা না করা হয়। তারপরও ধর্মের নামে মানুষ হত্যা করা, জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করা। আমি মনে করি, এতে আমাদের ইসলামেরই ক্ষতি হচ্ছে। ইসলাম ধর্মের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। ইসলাম ধর্ম পবিত্র ধর্ম। এই শান্তির ধর্মকে যারা হেয়প্রতিপন্ন করছে, তারা শান্তিপ্রিয় মানুষের জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মসজিদের ইমাম, যাঁরা ধর্মীয় শিক্ষা দেন, ওলামা মাশায়েখ, ছাত্র-শিক্ষকসহ সারা বাংলাদেশের জনগণের প্রতি আমাদের আহ্বান থাকবে, জঙ্গিবাদের প্রতিরোধের ব্যাপারে আপনারা সচেতন থাকবেন। বাংলাদেশে কোনো জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদ চাই না। বাংলাদেশের মানুষ শান্তিপ্রিয়, সহনশীল। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় তারা বিশ্বাস করে। যার যার ধর্ম সে সে পালন করবে। প্রত্যেক মানুষ যেন তার ধর্ম শান্তিপূর্ণ ও সম্মানের সঙ্গে পালন করতে পারে, এটাই হচ্ছে ইসলামের মূল শিক্ষা। আমরা সেভাবেই এ দেশকে গড়ে তুলতে চাই। এ ব্যাপারে সবার সহযোগিতা চাই। আমি ধন্যবাদ জানাই, প্রত্যেকে যথেষ্ট সাড়া দিয়েছেন এবং যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছেন। আগামীতে এটা অব্যাহত থাকবে, সেটাই আমি চাই।’