ঈদ আনন্দে বাগড়া দিয়েছে বৃষ্টি

⏱ | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৬ 📁 আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর- আবহাওয়ার পূর্বাভাসে আগেই বলা হয়েছিল, আজ মঙ্গলবার ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হতে পারে। সেটাই সত্য হলো। তাই, বৃষ্টি মাথায় শুরু হলো পবিত্র ঈদুল আজহা, মুসলিম সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব। যদিও সোমবার রাত থেকেই হঠাৎ হঠাৎ এ বৃষ্টি হতে দেখা গেছে। কালো মেঘের গর্জনে কেটেছে সারা রাত।

rainঈদগাহ ও মসজিদে নামাজ শেষে নগরীর ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কুরবানীর জন্য সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও বৃষ্টির কারণে স্বাভাবিক পশু কুরবানি কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। সকাল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি হচ্ছে। তবে কেউ কেউ বৃষ্টি উপেক্ষা করেই কুরবানি দেয়া শুরু করেছেন।

এদিকে বৃষ্টির কারণে অনেকে ঘর থেকেই বের হতে পারছেন না। এ কারণে ঈদের খুশি অনেকটা ঘরকেন্দ্রিক হয়ে উঠেছে। তাছাড়া পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা সুষ্ঠু না হওয়ায় অনেক রাস্তাতে জমে যাচ্ছে হাঁটু পরিমাণ পানি। বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে নেই চিরচেনা ভিড়।

সারা দেশে বৃষ্টি হলেও ঢাকাসহ মধ্যাঞ্চলে এর মাত্রা বেশি। আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান বলেন, গতকাল রাতে প্রচণ্ড বৃষ্টির ধারাবাহিকতা চলছে। গতকাল সকাল ছয়টা থেকে আজ সকাল নয়টা পর্যন্ত রাজধানীতে ২৯ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। আজ দেশে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে টাঙ্গাইলে; সকাল ছয়টা থেকে নয়টা পর্যন্ত এখানে পরিমাণ ছিল ১৬ মিলিমিটার।

জিলহ্জ মাসের দশম দিন উদযাপিত মুসলিমদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বাংলাদেশে কোরবানির ঈদ নামেই পরিচিত। এদিন পশু জবাই দেওয়ার মাধ‌্যমে মনের পঙ্কিলতাকে বিসর্জন দেওয়া ইসলামের শিক্ষা।

গত ঈদুল ফিতরে শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার পর এবার সব ঈদের নামাজ ঘিরেই ছিল কড়া নিরাপত্তা। কয়েক স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনি ছিল সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণের জাতীয় ঈদগাহ ঘিরে।

ঝুম বৃষ্টির মধ্যে যথাসময়েই শুরু হয় প্রধান জামাত। বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের জ্যেষ্ঠ পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান এতে ইমামতি করেন। তারপর তার সঙ্গে মোনাজাতে হাত তোলেন মুসল্লিরা। সৌদি আরবে হজ পালনরত বাঙালি মুসলিমদের জন্য দোয়ার পাশাপাশি রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সুস্বাস্থ্যের জন্যও দোয়া করেন ইমাম।