কাওড়াকান্দি-শিমুলিয়া নৌরুট: বৃষ্টিতে চরম দূর্ভোগ যাত্রীদের, মহাসড়কে যানজট


❏ শনিবার, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর, স্পট লাইট

মেহেদী হাসান সোহাগ- মাদারীপুর- শনিবার সকাল থেকেই ঢাকাগামী যাত্রীদের চাপ ছিল মাদারীপুর জেলার শিবচরের কাওড়াকান্দি ঘাটে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে যাত্রী ও পরিবহনের প্রচন্ড চাপ বেড়ে যায় ঘাটে। কাওড়াকান্দি পুলিশ বুথ থেকে পাঁচ্চর পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয় ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে। এছাড়াও আড়িয়াল খাঁ নদের হাজী শরিয়ত উল্লাহ সেতুর টোল প্লাজা থেকে সূর্য্যনগর বাজার পর্যন্ত আরো দুই কিলোমিটার যানজট রয়েছে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে।

unnamedযানজটের তীব্রতায় দূর্ভোগ বাড়িয়ে দেয় যাত্রীদের। এরই মধ্যে দুপুর থেকে ভারী বর্ষণ শুরু হলে এই দূর্ভোগ চরমে পৌছায়। পাঁচ্চর এ্যাপ্রোচ সড়ক থেকে পায়ে হেঁটে কাওড়াকান্দি ঘাটে পৌছানো যাত্রীরা বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে ঘাটে পৌছায়। এসময় প্রায় সহ¯্রাধিক যাত্রীদের বৃষ্টিতে ভিজতে হয়েছে। এসময় বৃষ্টির সাথে বাতাস হওয়ায় প্রায় ১ ঘণ্টা লঞ্চ ও স্পিডবোট বন্ধ ছিল বলে কাওড়াকান্দি ঘাট কর্তৃপক্ষ জানায়। তবে বৃষ্টি কমে আসলে নৌযান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

সরেজমিনে শনিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কাওড়াকান্দি ঘাটে অবস্থান করে দেখা গেছে এই চিত্র। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের পাঁচ্চর এ্যাপ্রোচ সড়কের সংযোগ সড়ক থেকে কাওড়াকান্দি ঘাট পর্যন্ত মহাসড়কের উপর একপাশ জুড়ে দুই সারিতে আটকে আছে বাস, ট্রাক, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাসসহ ছোট ছোট পরিবহন। এর মধ্যে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শুধুমাত্র প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, এ্যাম্বলেন্সসহ ব্যক্তিগত গাড়ি ও দূরপাল্লার পরিবহনকে ঘাটে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে। পন্যবাহী ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান পারপার আপাতত বন্ধ রেখেছে কর্তপক্ষ।

মাদারীপুর থেকে ঢাকাগামী প্রাইভেটকারের যাত্রী শুভ আহমেদ জানান, ‘কাওড়াকান্দি ঘাট থেকে দেড় কি.মি দূরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে আটকে আছেন তিনি। প্রায় চার ঘণ্টা ধরে আটকে থাকলেও সামনে এগুনোর কোন লক্ষণ তিনি দেখছেন না।’

ব্যক্তিগত গাড়ির অপর এক যাত্রী তানজীল চৌধুরী বলেন, সকাল দশটায় মহাসড়কে এসে আটকে আছি। চার ঘণ্টা ধরে যেখানে আছি তার চেয়ে মাত্র ১০০ গজ সামনে যেতে পেরেছি। মনে হচ্ছে সন্ধ্যার আগে ফেরিতে উঠা সম্ভব হবে না। খুবই দূর্ভোগ দেখা দিয়েছে যাত্রীদের।’

বিআইডব্লিউটিসি’র কাওড়াকান্দি ঘাট সূত্র জানায়, শনিবার সকাল থেকেই মাত্রাতিরিক্ত যাত্রী আগমনের কারণে কাওড়াকান্দি ঘাটে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে পদ্মায় নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরি চলাচল ব্যহত হওয়ায় ঘাটে যানজটের পরিমান বেড়ে যাচ্ছে। বর্তমানে ১৪টি ফেরি, ৮৫ টি লঞ্চ ও ২শতাধিক স্পিডবোট যাত্রী পারাপারের কাজে নিয়োজিত রয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলা থেকে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই হয়ে শিবচরের কাওড়াকান্দি ঘাটে আসছে ঢাকাগামী যাত্রীরা। মহাসড়কে যানজট থাকায় পাঁচ্চর তেলের পাম্প থেকে প্রায় আড়াই কি.মি পথ পায়ে হেটে ঘাটে পৌছাতে হচ্ছে যাত্রীদের।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আনসার উদ্দিন বলেন,‘ শনিবার সকাল থেকেই ঢাকাগামী যাত্রীদের চাপ রয়েছে কাওড়াকান্দি ঘাটে। পাটুরিয়া নৌরুট নৌযান চলাচলে সংকট সৃষ্টি হওয়ায় এই রুটে গাড়ির চাপ একটু বেশি। তবে আমরা ঘাটে শৃঙ্খলা বজায় রেখে কাজ করে যাচ্ছি। এবং যাত্রীদের যাতে দূর্ভোগ না হয় সেদিকে আমাদের প্রশাসনের ব্যপক তৎপরতা রয়েছে। এছাড়াও ঘাটে ভ্রাম্যমান আদালতের একাধিক টিম টহল দিচ্ছে।’