• আজ রবিবার,২৬ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ৯ মে, ২০২১, রাত ১০:১৪

লালমনিরহাটে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে মাদ্রাসায় আটকে ধর্ষণ !

❏ শনিবার, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৬ দেশের খবর, রংপুর, স্পট লাইট

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি-

লালমনিরহাট জেলার কালীগঞ্জ উপজেলায় ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক মাদ্রাসাছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে রাতভর ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

child_rapeউপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের উত্তর বত্রিশ হাজারী কুটিরপাড় নামক এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে।

প্রাপ্ত খবরে জানা যায়, উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের বত্রিশ হাজারী গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে আলিম শ্রেণীর ছাত্র মেহেদি হাসান বিপ্লব (২০) প্রতিবেশী এক মাদ্রাসাছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে।

শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাতে বিপ্লব মেয়েটিকে সুকৌশলে বাড়ি থেকে বের করে এনে বাড়ির পার্শবর্তি মাদ্রাসার নির্জন রুমে সারা রাত ধরে ধর্ষণ করে।

রাতে মেয়েটির মা তাকে শোয়ার ঘরে দেখতে না পেয়ে পরিবারের লোকজন সহ সারারাত ধরে খোঁজাখুঁজি করে কোথাও মেয়েটির হদিস পায়নি।

শনিবার দুপুরে কয়েকজন শিশু বাড়ির অদূরে মাদ্রাসার মাঠে খেলতে যায়। শিশুরা সেখানে মাদ্রাসার একটি ঘরে বিপ্লবের সঙ্গে মেয়েটিকে দেখতে পেয়ে মেয়েটির পরিবারকে খবর দিলে বিপ্লব পালিয়ে যায়।

মেয়েটিকে উদ্ধার করে সারারাত বাহিরে থাকার কারণ জানার জন্য চাপ দিলে মেয়েটি পরিবারের কাছে ধর্ষণের কথা খুলে বলে।

মেয়েটি জানায়, বেশ কিছুদিন আগে বিপ্লব তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কয়েকদিন ধর্ষণ করে তাকে। শুক্রবার রাতে বিপ্লব তাকে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে বিয়ে করবে বলে বাড়ি থেকে ডেকে আনেন। এরপর মাদ্রাসা একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে তাকে রাতভর ধর্ষণ করে।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে গেলে বিপ্লবের পরিবারের লোকজন বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানার ওসি আরজু মোঃ সাজ্জাদ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে শনিবার বিকেলে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মেয়েটি শারীরিক ভাবে দুর্বল থাকার কারনে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মেয়েটির ডাক্তারী পরীক্ষাসহ ধর্ষকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে বিপ্লব সহ পরিবারের লোকজনের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তার বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি।

পুনশ্চ: উঠতি বয়সী ছেলে মেয়েদের মাঝে শারীরর সম্পর্ক এবং কোমল মতি মেয়েদেরকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বখাটে ছেলেদের ধর্ষনের ঘটনা আমাদের দেশে অহরহ হচ্ছে। শুধু গ্রেপ্তার করেই ধর্ষককে জেলহাজতে প্রেরণ করলেই হবেনা। যাতে এরা আইনের কোন ফাঁকফোকর দিয়ে বের হতে না পারে সেদিকে প্রশাসনকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে বলে গুণীজনরা মনে করেন। সেই সাথে সচেতন হতে হবে ‘আবেগী ’মেয়েদেরও।