🕓 সংবাদ শিরোনাম

 সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করায়  ‘মিডিয়া এডুকেটরস নেটওয়ার্ক’ এর প্রতিবাদসাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে আমিরাতে সাংবাদিকদের প্রতিবাদ সভারোজিনার সঙ্গে যারা অন্যায় করেছে, তাঁদের জেলে পাঠান: ডা. জাফরুল্লাহকেরানীগঞ্জে ফ্ল্যাট থেকে যুবতীর অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারপাটগ্রাম সীমান্তে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে নারী ও শিশুসহ ২৪জন আটকসাংবাদিকদের ভয় দেখিয়ে সরকার গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করতে চায়: ভিপি নুরসাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা নয়, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন: হানিফআর এমন ভুল হবে না: নোবেলস্বেচ্ছায় কারাবরণের আবেদন নিয়ে থানায় অনুসন্ধানী সাংবাদিকেরাইসরায়েলি আগ্রাসনের প্রতিবাদে রাস্তায় ঢাবি শিক্ষক সমিতি

  • আজ বুধবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৯ মে, ২০২১ ৷

ভারতে গৃহবধূকে হত্যা করে বাবার বাড়িতেই গুম • উদ্ধার হল কঙ্কাল


❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৬ আন্তর্জাতিক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক-
দশ মাস নিখোঁজ থাকার পর গৃহবধূর কঙ্কালসার দেহ উদ্ধার হল খাটের তলা থেকে। বাবার বাড়ির খাটের তলায় মাটি খুড়ে পুঁতে রাখা হয়েছিল দেহটি। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথির দারুয়াপাড়ায়। ঘটনার পর থেকেই লাপাত্তা স্বামী।
464শনিবার সকালে মাটি খুঁড়তে গিয়েই ঘটনার সূত্রপাত। পচা দুর্গন্ধ বেরোতে থাকে গর্ত থেকে। খবর দেওয়া হয় কাঁথি থানায়। পুলিশ আসার পরেই আরও মাটি খুঁড়ে চক্ষু চড়কগাছ স্থানীয় বাসিন্দাদের। দালানের নীচ থেকেই উদ্ধার আস্ত এক কঙ্কাল। এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। ক্রমেই উন্মোচন হয় রহস্যের। স্ত্রীকে খুন করে চুপচাপ তাঁরই বাপের বাড়ির দালানের খাটের তলায় পুঁতে দিয়েছিল স্বামী। তারপর নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে নিজেই থানায় গিয়ে নিখোঁজ ডায়েরি করেছিল স্ত্রীর নামে। এত করেও শেষরক্ষা হল না। সামনে চলে এল সত্যটা।
জানা গেছে, বছর দেড়েক আগে নূরজাহান খাতুনের সঙ্গে বিয়ে হয় কেরালা রাজ্যের এক যুবকের। বিয়ের পর পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথির দারুয়ায় ঘর ভাড়া নিয়ে চলে আসে তারা দুজন। কিছুদিন পর থেকেই তাদের সংসারে শুরু হয় অশান্তি। এরপর হঠাৎ একদিন নিখোঁজ হয়ে যান নুরজাহান। এলাকাবাসীর সন্দেহ হয় সাংসারিক আশান্তির জেরেই ঘর ছেড়ে পালিয়েছেন তিনি। আর এই মিথ্যাটিকে সত্য প্রতিপন্ন করতে 'গুণধর স্বামী' থানায় গিয়ে নিখোঁজ ডায়েরি করে। ২০১৫ সালের নভেম্বর থেকে নিখোঁজ ছিলেন ওই তরুণী গৃহবধূ। এতদিন পর তাঁর কঙ্কালসার দেহ মেঝের তলা থেকে উদ্ধার হওয়ায় স্পষ্ট হয়ে যায় মৃতার স্বামীই খুন করে লোপাট করেছিল দেহ। কিছুদিন পর লাপাত্তা হয়ে যায় যুবকও। যুবকের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।