পাবনায় স্বামী পরিত্যক্তা নারীকে গলা কেটে হত্যা


❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৬ দেশের খবর, রাজশাহী

dপাবনা প্রতিনিধিঃ

পাবনার আটঘরিয়ায় সালমা খাতুন (৩০) নামের স্বামী পরিত্যক্তা এক নারীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। শনিবার রাতের কোনো এক সময় তাকে হত্যা করা হয়। রোববার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত সালমা খাতুন আটঘরিয়া পৌর এলাকার কলেজপাড়া মহল্লার নিজাম উদ্দিনের মেয়ে।

পারিবারিক সুত্র ও স্থানীয়রা জানায়, আটঘরিয়া উপজেলার সঞ্জয়পুর গ্রামের জহুরুল ইসলামের সাথে বিয়ে হয়েছিল সালমা খাতুনের। গত ৪ বছর আগে স্বামী জহুরুল ইসলাম তার স্ত্রীকে তালাক দেন। তাদের কোনো সন্তান ছিলনা।

এরপর থেকে সালমা খাতুন আটঘরিয়া কলেজপাড়ায় তার বাবার বাড়িতে থাকতেন। শনিবার রাত আটটার পর বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর হঠাৎ করেই নিখোঁজ হন তিনি। এরপর বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও সালমা’র কোনো সন্ধান পায়নি পরিবারের লোকজন। রোববার সকালে বাড়ির পাশে কলা বাগানের মধ্যে তার গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেয় স্থানীয়রা।

আটঘরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুক আহমেদ জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। কারা, কি কারণে তাকে হত্যা করেছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ওসি ফারুক।
এদিকে নিহত সালমা খাতুনের ভাই সেলিম হোসেন অভিযোগ করে সাংবাদিকদের জানান, প্রতিবেশি বাহাদুর প্রামানিকের ছেলে তসলিম হোসেন, কালাম হোসেন সহ তাদের অন্যান্য ভাইদের সাথে সালমার বাবা নিজাম উদ্দিনের পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে সালমাকে তুলে নিয়ে তারা হত্যা করেছে বলে অভিযোগ সেলিম হোসেনের।