সাপাহারে আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে আমন চাষাবাদে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৬ অর্থনীতি

নয়ন বাবু, সাপাহার প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া চাষীদের অনুকুলে থাকলে এবার আমন চাষাবাদে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টির পানি নির্ভর ঠাঁঠাঁ বরেন্দ্র ভূমির এই উপজেলায় এবারে বর্ষা চাষীদের অনুকুলে থাকায় কৃষকগন মঙ্গার বাজারে পানির দামে ঘরের ধান চাউল বিক্রি করে অধিক মূল্যে সার বীজ কিনে আশায় বুক বেধে আমন চাষাবাদ করেছে।

dhan

এ পর্যন্ত আবহাওয়া চাষীদের অনুকুলে থাকায় সারা মাঠ সবুজের সমাহারে ভরে গেছে যে দিকে তাকাই সে দিকে সবুজ আর সবুজ। মাঠের ধান গাছগুলির এখন কাঁচথোড় অবস্থা হয়ে উঠেছে আর কয়েক দিন পর ধান গাছগুলি গামড় অর্থাৎ পেটে ধান ভর্তি হয়ে উঠবে। এখনও মাঠের ধান ক্ষেতে অনিষ্টকারী কোন পোকা মাকড়ের উল্লেখযোগ্য উপদ্রপ না থাকায় মাঠ চাষীদের অনুকুলে রয়েছে।

উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এবারে উফশি আমন ও স্থানীয় জাতের আমন মিলে সর্বমোট ১৭ হাজার ৬ শত ৩০ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদ হয়েছে যা অর্জিত লক্ষমাত্রার চেয়ে ৫% শতাংশ বেশি। কৃষকদের মাঠে ধান ক্ষেতে যাতে অনিষ্টকারী কোন পোকামাকড় ক্ষতি করতে না পারে সে জন্য প্রতি দিন কৃষি অফিসের ব্লক সুপার ভাইজারগন কৃষকদের সাথে মাঠে মাঠে কাজ করে যাচ্ছে সে সাথে প্রত্যেক কৃষককে পরামর্শ মুলক হ্যান্ডবিল বিতরণ করে চলেছেন বলে কৃষি অফিসার এএফএম গোলাম ফারুক হোসেন জানিয়েছেন। এখন পর্যন্ত আবহাওয়া চাষীদের অনুকুলে থাকায় ক্ষেতের ধান দেখে কৃষকের মনে আনন্দের দোলা লেগেছে।

উপজেলার একাধীক কৃষকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত আবহাওয়া চাষীদের অনুকুলে থাকলে এবারে উপজেলায় আমন চাষাবাদে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। এবারে বাম্পার ফলন হলে কৃষকগন একটু আনন্দে নবান্ন উৎসব পালন করতে পারবে বলেও তারা তাদের অভিমত প্রকাশ করেছেন। প্রতি বছর এ উপজেলায় চাহিদার তুলনায় অধিক পরিমান খ্যাদ্য শস্য উৎপাদন হয়ে থাকে এবারেও উপজেলার চাহিদা পূরণ করে উদ্বৃত্ত খাদ্য শস্য জেলার অন্যান্য উপজেলায় রপ্তানী করা যাবে বলেও অভিজ্ঞ কৃষক ও কৃষি দপ্তর জানিয়েছেন।