ঘুমান ভারতে, খান মিয়ানমারে..!


❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৬ চিত্র বিচিত্র

news_picture_36846_india-myanmar1


চিত্র বিচিত্র ডেস্কঃ

ঘুমান ভারতে, খাবার খান মিয়ানমারে। ঘটনা সত্য। ভারতের আসামে, মিয়ানমার সীমান্তবর্তী এক গ্রাম প্রধানের বাড়ি এমনস্থানে নির্মিত যেখানে এই বিষয়টি নিত্যদিনের ব্যাপার। লোঙ্গা নামে পরিচিত ঐ গ্রামটির অর্ধেক রয়েছে ভারতে, অর্ধেক মিয়ানমারে। তবে গ্রাম প্রধান আঙের বাড়ি দুই দেশের সীমান্তকেই ছুঁয়েছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, গ্রাম প্রধানের কুঁড়েঘরটির শোয়ার ঘর রয়েছে ভারতের অংশে। তবে রান্না কিংবা খাওয়ার কাজটি যে অংশে সারেন তা রয়েছে মিয়ানমারের অংশে।

আন্তর্জাতিক সীমান্তের মাঝে অবস্থান হওয়ায় পাসপোর্ট, ভিসা ছাড়াই দু’দেশে তার অবাধ যাতায়াত। শুধু তারই নয়, এই অনুমতি রয়েছে তার ৬০ স্ত্রীরও।

এমনিতেই দু’দেশের ১ হাজার ৬শ’ ৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তে ভারতীয়রা মিয়ানমারের ২০ কিলোমিটার পর্যন্ত পাসপোর্ট-ভিসা ছাড়াই যেতে পারেন। একই সুবিধা রয়েছে মিয়ানমারের মানুষের জন্যও। ভারতে তারা সীমান্ত থেকে ৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত অবাধে চলাচল করতে পারেন।

তারপরও সীমান্তের মাঝে থাকা গ্রামটির মানুষেরা যেন কোনো গোলমালে জড়িয়ে না পড়েন সেজন্যে সদা সতর্ক দু’দেশের সীমান্তরক্ষীরা।

গ্রামটির ৩০ ভাগ মিয়ানমার সীমান্তের মধ্যে থাকলেও সবাই দুই দেশেই কাজকর্ম করে থাকেন। ‘ফ্রি মুভমেন্ট জোন’ থাকায় গ্রামের মানুষের শিক্ষা কিংবা স্বাস্থ্য- দুটোরই চাহিদা মেটে দুই দেশে সমান তালে। তাদের ব্যবসা-বাণিজ্যও চলে অবাধে। তবে ভারতের তুলনায় মিয়ানমারের অর্থের মান অত্যন্ত কম হওয়ায় এই অঞ্চলে এখনও রয়েছে বিনিময় প্রথা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, লোঙ্গা গ্রামের মানুষ শান্তশিষ্ঠ হলেও ঐ অঞ্চলে মাদক ও অস্ত্র চোরাচালান বড় ধরনের সমস্যা।

এই বিভাগ থেকে আরও পড়ুন :
২৩ বছরে ১১ শিশুর মা, নিতে চান ১০০ সন্তান!

❏ সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১

এক মুলার ওজন সাড়ে ৮ কেজি !

❏ শনিবার, ফেব্রুয়ারী ১৩, ২০২১

স্ত্রীর সঙ্গে প্রেমিকা নিয়ে গেলে অর্ধেক ছাড়!

❏ শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ১২, ২০২১

Chicken ২৫ দিন ধরে থানার লকআপে ২ মুরগি!

❏ শনিবার, ফেব্রুয়ারী ৬, ২০২১