সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ত্বক সুন্দর রাখতে করতে হবে যত্ন!

❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৬ লাইফস্টাইল

ত্বকের যত্ন

আফসানা নিশি, লাইফস্টাইল কন্ট্রিবিউটার, সময়ের কণ্ঠস্বর। ত্বকের লাবন্য বজায় রাখতে দরকার উপযুক্ত যত্ন। আমাদের বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে ত্বকে একটা বয়েস ছাপ পড়ে যায়। তবে সেটা সবার ক্ষেত্রে নয়। যারা নিয়মিত ত্বকের যত্ন করে তাদের ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে না বরং ত্বক থাকে উজ্জল ও তরুন। এই উজ্জ্বল ও তরুণ ত্বক যেমন বয়সের ছাপ লুকায় তেমন ত্বক রাখে স্বাস্থ্যকর।

১।প্রতিদিন ভাল ফেসওয়াস বা ক্লিনজার দিয়ে দুবার ত্বক পরিষ্কার করুন। ত্বক পরিষ্কার করার পর অবশ্যয় ক্রিম বা মস্চারাইজার ব্যবহার করুন। ত্বকের জন্য মস্চারাইজার অনেক জরুরি। এটি ত্বকে প্রয়োজনীয় পানি সরবরাহ করে। ত্বক উজ্জল করে ত্বকে পুষ্টি যোগায়।

২।কাঁচা দুধে ২-৩ টা অমন্ড বাদাম সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে এই বাদাম পেস্ট করে মুখে লাগান। এটি শুষ্ক ত্বকে পুষ্টি যোগাবে। যে কোন ধরনের ত্বকে চকচক ভাব দেবে ও ত্বকের লাবন্য ধরে রাখবে। সানবার্ণ দূর করবে ও নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকে বলিরেখা পড়তে দেবে না,কালো দাগ সেরে যাবে।

৩।শশার রস,লেবুর রস ও গোলাপ জল সমান পরিমান মিশিয়ে ত্বকে লাগান। এটি রোদে পোড়া ভাব দূর করবে। ত্বক উজ্বল রাখবে ও বয়সের ছাপ পড়তে দেবে না। কারণ এই মিশ্রণ ত্বকে বলিরেখা পড়তে দেয় না বয়সের কালো ছাপ পড়তে দেয় না।

৪।রোজ রাতে কাঁচা দুধে তুলা ভিজিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। এটি ত্বকে টোনার ও ক্লিনজারের কাজ করবে। কাঁচা দুধ দিয়ে নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার করলে ত্বকের কালো ছোপ,বলিরেখা,সানবার্ণ দূর হয়। দুধ দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে অবশ্যই মস্চারাইজার লাগাতে হবে। চাইলে ভাল কোন নাইট ক্রিমও ব্যবহার করতে পারেন। তবে সেটা তো অবশ্যই নিজের ত্বকের ধরণ অনুযায়ী। কারণ ভিন্ন ভিন্ন ত্বকের জন্য ভিন্ন ভিন্ন ক্রিম হয়। তুলায় দুধ নিয়ে ঠোঁটে লাগালেও ঠোঁটের কালো ভাব চলে যায় ও ঠোঁট গোলাপি হয়।

৫।নিয়ম করে সপ্তাহে ১ দিন বা মাসে ২-৩ কাঁচা দুধে কাঁচা হলুদের রস মিশিয়ে খেলে ভিতর থেকে রক্ত পরিষ্কার হয় ও ত্বক পরিষ্কার হয়। এটি ত্বকের সব রকম সমস্যা আস্তে আস্তে দূর করে ও ত্বক উজ্বল করে।