প্রেমের ফাঁদে ফেলে ভূয়া কাবিনে ৫ বছর সংসার • স্ত্রীর অধিকার পেতে স্বামীর বাড়িতে হ্যাপী

⏱ | সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৬ 📁 দেশের খবর, রাজশাহী, স্পট লাইট

আব্দুল লতিফ রঞ্জু, পাবনা প্রতিনিধি-

পাবনার চাটমোহর উপজেলার হান্ডিয়াল ইউনিয়নের বাঘলবাড়ী গ্রামের মৃত আবু হানিফের ছেলে আঃ গফুর (২৪) ভূয়া কাবিন করে এক নারীকে নিয়ে ৫ বছর সংসার করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

pabna-happy-photoঅভিযোগে জানা গেছে, আঃ গফুর চাকরির উদ্দেশ্যে ২০১১ সালে ঢাকায় যায়। সেখানে সে একটি গার্মেন্টস্ কোম্পানিতে চাকরি নেয়। অপর দিকে কর্মের সন্ধানে ঢাকা যান তাড়াশ উপজেলার বারুহাশ ইউনিয়নের গাড়াবাড়ি গ্রামের আলী আশরাফের মেয়ে হাফিজা খাতুন হ্যাপী (২১)। চাকরির সুবাদে হ্যাপী তাদের গ্রামের এক ভাইয়ের ঢাকার বাসায় থাকতো। আঃ গফুরের এক বন্ধুর মাধ্যমে হাফিজা খাতুন হ্যাপীর সাথে প্রথম পরিচয় হয় গফুরের। প্রায় ৬ মাস তাদের প্রেমের সম্পের্কের ইতি টেনে তারা ২০ মে ২০১১ সালে বিবাহের বন্ধনে আবদ্ধ হয়।

দীর্ঘ ৫ বছর স্বামী-স্ত্রী হিসাবে সংসার করে। ইতিপূর্বে যৌতুক হিসাবে দুই লাখ টাকা নেয় আঃ গফুর। সে আবারও যৌতুক দাবি করে। টাকা না দিলে হ্যাপীকে আঃ গফুর নিজ বাড়িতে আনবে না বলে ভয়ভীতি দেখায়। হ্যাপী টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে আঃ গফুর তাকে ঢাকাতেই ফেলে রেখে পালিয়ে আসে তার নিজ বাড়ি হান্ডিয়ালে। দিশেহারা হয়ে হ্যাপী গত ১৫ সেপ্টেম্বর আঃ গফুরের ঠিকানা খুঁজতে খুঁজতে তার স্বামীর বাড়িতে আসলে আঃ গফুরের দুই বোন রুপসী ও লিপি এবং ভাবি তাকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এমতাবস্থায় পার্শ্ববর্তী লোকজন এসে মেয়েটিকে তাদের হাতে থেকে বাঁচিয়ে হান্ডিয়াল ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার নজরুল ইসলামের বাড়িতে নিয়ে যায়। হ্যাপীর গলার স্বর্নের একটি চেন তারা ছিড়ে নেয় বলে হ্যাপী সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন।

হ্যাপী আরো বলেন, সু-কৌশলী গফুর দীর্ঘ ৫ বছর সংসার জীবনে ঢাকাতে বসবাস করে এবং হ্যাপীর গ্রামের বাড়িতে যাতায়াত করতো। হ্যাপী আঃ গফুরের বাড়িতে আসতে চাইলেও তাকে কখনও আনা হয়নি। এ সময় হ্যাপীর গর্ভে সন্তান আসলে আঃ গফুর পরিকল্পিতভাবে তা নষ্ট করে ফেলে। হ্যাপী এখন ইউপি সদস্যের বাড়িতে অবস্থান করছেন। তিনি এলাকার প্রধানবর্গের নিকট ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেছেন। স্ত্রীর অধিকার চান হ্যাপী।

এ ব্যাপারে জানার জন্য আঃ গফুরের বাড়িতে গেলে তাকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। আঃ গফুরের মা, বোন ও ভাবি এ বিষয়ে সাংবাদিকদের তথ্য দিতে আপত্তি করেন।

এলাকাবাসী জানান, আঃ গফুর গং এলাকার প্রভাবশালী। এ অবস্থায় হ্যাপী ন্যায় বিচার পাবে কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। হান্ডিয়ালের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন সভাপতি রবিউল করিম মাষ্টার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং হ্যাপীকে প্রমানপত্র আনতে বলেছেন বলে জানা গেছে।