🕓 সংবাদ শিরোনাম

চীনা রকেটের সেই ধ্বংসাবশেষ আছড়ে পড়লো মালদ্বীপের কাছেঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে চলছে দূরপাল্লার বাসশরীয়তপু‌রে কৃষিঋণ পেতে হয়রানি, ব্যাংকে দালাল চ‌ক্রের দৌরাত্ম্য চর‌মে!স্কটল্যান্ডের সংস‌দে প্রথম বাংলা‌দেশি এমপি নবীগঞ্জের ফয়ছল চৌধুরীসিলেটে চাহিদামতো ইফতারি না দেয়ায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে হত্যা!করোনাকালে কিন্ডারগার্টেন ও নন-এমপিও শিক্ষকদের করুণ দশা!ওয়ালটন স্মার্টফোনে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ‘ঈদ সালামি’চাচীর পরকীয়ার কথা জেনে যাওয়ায় ভাতিজাকে নৃসংশ ভাবে খুনকেরাণীগঞ্জে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার-৪চুয়াডাঙ্গায় পুলিশের উপর মাদক কারবারিদের হামলা: এস আইসহ আহত-৫

  • আজ রবিবার,২৬ বৈশাখ, ১৪২৮ ৷ ৯ মে, ২০২১, সকাল ১১:১৫

কালকিনিতে পালরদী নদ থেকে বালু উত্তোলনের হিড়িক : প্রশাসন নির্বিকার

❏ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মিলন, কালকিনি প্রতিনিধি: মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার পালরদী ও আড়িয়াল খাঁ নদ থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের মহোৎসবে মেতে উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল। তারা বালু লুট-পাট করে বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করছে হরদমে। এদিকে নিয়ম বহির্ভুতভাবে বালু উত্তোলন করায় নদীর তীরবর্তি এলাকা ভেঙ্গে একাকার হচ্ছে।

balu

অপরদিকে নদীর দুই পাড়সহ ফসলি জমি, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও রাস্তা ঘাট ভেঙ্গে পরিবেশ ভারসাম্য হুমকিতে পড়েছে। আর এদিকে সরকার বঞ্চিত হচ্ছে বিপুল পরিমান রাজস্ব আয় থেকে। কিন্তু এতে করে উপজেলা প্রশাসনের ভুমিকা দেখা গেছে নির্বিকার।

সরেজমিন সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার ঐতিহ্যবাহি পালরদী ও আড়িয়াল খাঁ নদে বেশ কযেকটি অবৈধ ড্রেজার বসিয়ে প্রভাবশালী মহল ক্ষমতার বলে দিন রাত করে বালু উত্তোলনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তারা পালরদ্দি নদীর বড় ব্রীজের পাশে, থানার ব্রীজের গোড়ায়, পখিরা তিন রাস্তার মোড় ও ফাসিয়াতলা বড় ব্রীজের গোড়া থেকে নিয়মিত বালু উত্তোলন করে আসছে। এতে করে রাস্তাসহ ব্রীজ সমুহের একটি বড় অংশগুলো ভেঙ্গে পড়ার সম্ভব্যনা রয়েছে বলে এলাকাবাসি জানান। অপরদিকে বালু উত্তোলনের ফলে কৃষি জমি, বসত বাড়ি ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভেঙ্গে নদী গর্ভে বিলিনের পথে। প্রশাসন ও সংশ্লিষ্টদের চোখের সামনেই এই বালুর ব্যবসার হিড়িক চলছে হরদমে। পুরো উপজেলায় যেন বালুর ব্যাবসা এখন রমরমায় রুপ নিয়েছে। অনেকে আবার ক্ষোভের সঙ্গে অভিযোগ করে বলেন, দেদারছে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে কাজ চললেও অথচ প্রশাসন চোখ থাকিতে অন্ধের ভুমিকায় পালন করছে।

এ ব্যাপারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন কৃষক জানান, বিগত দিনের রেকর্ড ভেঙ্গে বালু উত্তোলনের হিড়িক পড়েছে পালরদি ও আড়িয়াল খা নদীতে। এভাবে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কাজ চলতে থাকলে আমাগো সমস্ত ফসলি জমি নদী গর্ভে চলে যাবে। আমরা এ বিষয় কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ দিয়ে ও কোন কাজ হচ্ছে না।

এ ব্যাপারের পৌর এলাকার শিকারমঙ্গল গ্রামের গৃহবধু টুলু বেগমসহ বেশ কয়েকজন অভিযোগ করে বলেন, আমাদের বসত বাড়ির পাশে পালরদি নদীতে অবৈধ ভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের কাজ চলছে। এতে করে আমাদের বসত বাড়ি ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। বালু উত্তোলনকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় আমরা ভয়ে কিছু বলতে পারতেছিনা।

উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা মোঃ শরীফুল ইসলাম বলেন, এ বিষয় অভিযোগ পেয়েছি। সময়ের অভাবে অবৈধ ড্রেজারের উপর অভিযান চালাতে পারছিনা। তবে এক সপ্তাহের মাধ্যে নদীতে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ শাম্মী আক্তারের সাথে মোবাইল ফোনে আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার দিকে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল উদ্দিন সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, অবৈধ ড্রেজার উপজেলার যে সমস্ত জায়গায় চলছে। সেই সমস্ত জায়গায় গিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।