ভারতের যে কোন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রস্তুত পাকিস্তান – রাহিল শরিফ

⏱ | বুধবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৬ 📁 আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক – ভারত অধিকৃত কাশ্মিরে বিচ্ছিন্নতবাদীদের হামলায় ১৭ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার ঘটনায় ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে যুদ্ধ উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। পাকিস্তানের সেনাপ্রধান রাহিল শরিফ বলেছেন, যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছে সেনাবাহিনী। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের সেনা-কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করে পাকিস্তান সব ধরনের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ হুমকি মোকাবেলায় প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন তিনি । জেনারেল হেডকোয়াটার্সে ওই বৈঠকের পর পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

pakistan

ভারতের গণমাধ্যমগুলোয় গত সোমবার বলা হয়, পাকিস্তানকে দাঁতভাঙা জবাব দেয়ার চাপ বাড়ছে ভারতে। ভারতে জনগণ, সেনাবাহিনী ও সরকারের মধ্যে নাকি এই দাবি জোরালো হচ্ছে। ভারতে যখন এজাতীয় উস্কানিমূলক তোড়জোড় চলছে তখন পাকিস্তানের সেনাপ্রধান রাহিল জানালেন, তিনি ও তার বাহিনী যেকোনো চ্যালেঞ্জ প্রহণে প্রস্তুত। একই সাথে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর রণপ্রস্তুতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি। আঞ্চলিক নিরাপত্তা পরিস্থিতি ও পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তায় এর প্রভাব সম্পর্কে তিনি অবহিত আছেন বলে উল্লেখ করেন।

রাওয়ালপিন্ডিতে কমান্ডারদের নিয়ে এক বৈঠক শেষে রাহিল শরিফ বলেন, এ অঞ্চলে সাম্প্রতিক সময়ে যা ঘটছে এবং এর প্রভাব নিয়ে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছি আমরা। তার নাম উদ্ধৃত করে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ যেকোনো ধরনের হুমকি মোকাবিলায় সম্পূর্ণ প্রস্তুত পাকিস্তান সেনাবাহিনী। সেনাপ্রধান আরো বলেন, জাতিকে সঙ্গে নিয়ে যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা হবে এবং রাষ্ট্রের অখ-তা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় যেকোনো অপচেষ্টার টুঁটি চেপে ধরবে সেনাবাহিনী। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র উপদেষ্টা সারতাজ আজিজ ভারতের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ তুলে বলেন, কাশ্মীরের করুণ মানবাধিকার পরিস্থিতি থেকে দৃষ্টি অন্য দিকে সরাতে পাকিস্তানের ওপর অযথা হামলার দায় চাপাচ্ছে ভারত। এর কয়েক ঘণ্টা পর জেনারেল শরিফ সেনাবাহিনীর প্রস্তুতি নিয়ে কথা বলেন। উরি সেনাঘাঁটিতে হামলার জন্য পাকিস্তানকে দায়ী করার পর সারতাজ আজিজ বিষয়টিকে ভারতের ভিত্তিহীন ও দায়িত্বজ্ঞানহীন অভিযোগ বলে উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, কাশ্মীর-পরিস্থিতি পাকিস্তানের সৃষ্টি নয়। ভারতের অবৈধ অধিগ্রহণ ও দমন-পীড়নের ফল এটি। এছাড়াও পাকিস্তান সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র বলেছেন, ভারত-অধিকৃত কাশ্মিরের উরি সেনাঘাঁটির হামলায় পাকিস্তানের যুক্ত থাকার অভিযোগ অগ্রহণযোগ্য ও তথ্য-প্রমাণবিহীন। উল্লেখ্য, গত রোববার ভোরে ভারত-শাসিত কাশ্মীরের উরিতে সেনা ব্রিগেডের সদর দপ্তরে চার হামলাকারী হামলা চালিয়ে ১৭ ভারতীয় সেনাকে হত্যা করে। ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যকার নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে উরি সেনাঘাঁটির অবস্থান। এর আগে এ বছরের জানুয়ারি মাসে পাঠানকোট বিমানঘাঁটিতে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এসব হামলার জন্য প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে পাকিস্তানকে দুষছে ভারত। উরি হামলার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, পাকিস্তান সন্ত্রাসী রাষ্ট্র। অন্যদিকে মোদি বলেন, হামলাকারীরা রেহাই পাবে না। দি ডন, টাইমস অব ইন্ডিয়া, ওয়েবসাইট।