🕓 সংবাদ শিরোনাম

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যাত্রী পরিবহনের প্রতিযোগিতায় ট্রাক ও পিকআপখেলার আগে মাঠে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ালেন কুড়িগ্রামের ক্রিকেটারেরাপাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হলো প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামকেকর্মস্থলে ফিরতে গাদাগাদি করে রাজধানীমুখী লাখো মানুষশেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে ৭ জনের মৃত্যুএক বিয়ে করে দ্বিতীয় বিয়ের জন্যে বড়যাত্রীসহ খুলনা গেল যুবক!আমার মৃত্যুর জন্য রনি দায়ী! চিরকুট লিখে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যাইসরাইলীয় আগ্রাসনের  বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্বের নিন্দার নেতৃত্বে সৌদি আরবত্রিশালে সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যুতে নিহতের বাড়ীতে চলছে শোকের মাতমকলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীর মরদেহ উদ্ধার

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

বউ কার?


❏ শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৬ আলোচিত, স্পট লাইট

সাখাওয়াত হোসেন সাখা, রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:

রৌমারী উপজেলার খেয়ারচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ইসমেতারা’র বিয়ে হয় বদরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আনোয়ার হোসেনের সাথে। গত বুধবার উভয় পক্ষের পারিবারিক সিদ্ধান্তেই বিয়ে হয় তাদের। কিন্তু বাধসাধেন যাদুরচর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য হায়দার আলী। তিনি দাবি করেন গত ২৩ মার্চ অর্থাৎ প্রায় ৬ মাস আগে রাজিবপুর কাজী অফিসে রেজিষ্ট্রি মূলে তাদের বিয়ে হয়েছে। ফলে বৃহস্পতিবার তিনি ইসমেতারাকে স্কুল ছুটির পরই তার বাড়িতে নিয়ে যান।

বিষয়টি জানাজানি হলে শিক্ষিকাপক্ষের লোকজন হায়দার আলীর বাড়িতে পুলিশ নিয়ে হাজির হন। এ খবর শুনে জামালপুরের আব্দুল হাকিম নামের এক যুবলীগ নেতা ইসমেতারাকে দু’বছর আগে বিয়ে করেছেন বলে দাবি করছেন। এমন ত্রিমূখী বিয়ের কাহিনী শুনে এলাকায় রৈ রৈ পড়ে যায়। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে উঠে আসে আরও অনেক কাহিনী। এখন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে বউ আসলে কার? আনোয়ার হোসেনের, হায়দার আলীর নাকি আব্দুল হাকিমের?

bou

হায়দার আলী জানান, ইসমেতারা আমার বৈধ স্ত্রী। তার সঙ্গে দীর্ঘ ৬ মাস আমি ঘর করেছি। তার পেটে আমার ঔরষজাত সন্তান রয়েছে। আর আমি জোর করেও তাকে আমার বাড়িতে নেই নি। সে নিজেই গিয়েছে। সে আনোয়ারকে বিয়ে করতে চায়নি। পরিবারের চাপের মুখে বিয়ে করতে বাধ্য হয়েছে।

এদিকে ওই শিক্ষিকা ইসমেতারার বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তার চাচাতো ভাই যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলীর সঙ্গে কথা হয়। তিনি বলেন, ইসমেতারাকে দেওয়ানগঞ্জে ওর ভাইয়ের বাসায় পাঠানো হয়েছে। হায়দারের বিরুদ্ধে আমরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি। একই কথা জানান ইসমেতারার পিতা আকবর আলীও।

যাদুরচর ইউনিয়ন কাজী আব্দুস সবুর জানান, আনোয়ারের সঙ্গে বিয়ে রেজিষ্ট্রির পর হায়দার আমার নিকট তার বিয়ে রেজিষ্ট্রির কাগজপত্র দিয়েছে। হায়দারের সঙ্গে বিয়ের বিষয়টি কন্যাপক্ষ গোপন রেখে পরবর্তীতে বিয়ের রেজিষ্ট্রি করেছে। যেহেতু আগেই তার বিয়ে হয়েছে সেহেতু বর্তমান রেজিষ্ট্রি এবং বিয়ে কোনটিই বৈধ নয়।