দেহ থেকে প্রাণপাখি ছিনিয়ে নিতে কড়া নাড়ছে মৃত্যু, বুঝবেন যেভাবে

১২:২১ অপরাহ্ন | শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৬ ইসলাম, স্পট লাইট

ইসলাম ডেস্ক- মানুষ মরনশীল। মহান আল্লাহ তায়াল পবিত্র কোরআনে এরশাদ করেছেন ‘কুল্লু নামছিন জায়িকাতুল মাুউত’ অর্থ্যাৎ প্রত্যেক নর-নারীকে মৃত্যুর শরাপ পান করতেই হবে। প্রতিটি মানুষের জীবন মৃত্যু মাধ্যমে সমাপ্ত হবে। এরপর শুরু হবে আখিরাতের অন্তত কালের জীবন। যে জীবনের শুরু আছে, কিন্তু শেষ নেই। আর কিয়ামতের দিন মহান আল্লাহ্ তায়ালা সকলের বিচার করবেন। বিচার শেষে যাকে দোযখ থেকে দূরে রাখা হবে এবং জান্নাতে প্রবেশ করানো হবে, তার কার্যসিদ্ধি ঘটবে।

img__25798_1474684424আর পার্থিব জীবন ধোঁকা ছাড়া অন্য কোন সম্পদ নয়। মৃত্যু এবং মৃত্যু যন্ত্রণা প্রত্যেক মানুষের জন্য অনিবার্য। মহান আল্লাহর সবচেয়ে প্রিয় রাসূল (সা:) কে মৃত্যুর স্বাদ নিতে হয়েছিলো। আর যখন তিনি মৃত্যুর কিনারায় পৌছেছিলেন, যখন তিনি মৃত্যু যন্ত্রণায় আক্রান্ত হলেন। তখন নিজের সাথে এক জগ পানি রেখেছিলেন, আর সেখান থেকে নিজের হাত ডুবিয়ে নিয়ে মুখ মুছতেন এবং বলতেন, “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, ইন্না লিল মাওতি লা সাকারাত, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ।” -অর্থাৎ: নিশ্চয়ই মৃত্যু যন্ত্রণা বড়ই তীব্র এবং বড়ই কঠিন! যদি খোদ রাসূল(সা:) মৃত্যু যন্ত্রণায় কাতর হন, তাহলে আমাদের কেমন হবে? অবশ্যই কঠিন। আর কাফির বা অবিশ্বাসীগণদের শাস্তি হবে সর্বোচ্চ।

মানুষ মরণশীল, তাই মরণ একদিন আমাদের কাছে আসবে এটাই বাস্তব। কিন্তু আমরা এ চরম সত্যতা মনে রাখি না। পৃথিবীর মোহে আমরা নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাই। ভাবি না মরণ যে কোনও সময় আমাদের দরজার কড়া নাড়বে।

সামনে এসে আমাদের দেহ থেকে প্রিয় প্রাণপাখিটা ছিনিয়ে নিয়ে যাবে। ফেলে যাবে নিথর দেহটাকে। তখন আমাদের আর কিছুই করার থাকবে না। কে, কখন, কোথায়, কীভাবে মরণের কাছে ধরা দেবে সেটা বলা কখনও সম্ভব না। আমাদের আশপাশে যারা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের কথা একটু স্মরণ করলে বুঝতে পারবেন মৃত্যু আপনার একেবারেই সামনে, যেকোনও সময় আপনি এর কাছে ধরা।

এই চির সত্য কথা সব সময় বিশ্বাস করতে হবে। অনেক গবেষকরা মৃত্যু রহস্য বহুবার উদঘাটনের চেষ্টা করেছেন। কিন্তু আজও এর সঠিত তথ্য বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি। তবে গবেষকরা মৃত্যুর আগের কিছু লক্ষণ চিহ্নিত করেছেন। আসুন জেনে নেই সাধারণভাবে মানুষের মৃত্যুর আগে কি কি লক্ষণ চোখে পড়ে:

* দৃষ্টিশক্তি ক্রমশ অস্পষ্ট হয়ে যাবে।

* হাত, পা, নিঃশ্বাস ঠাণ্ডা হয়ে যাবে।

* কপালের শিরাগুলো ফুলে উঠবে।

* গলার স্বর পাল্টে ক্ষীণ হয়ে যাবে।

* দাঁতের সাদা রঙও পরিবর্তন হয়ে যাবে।