সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দু’সদস্যের কমিটি দিয়ে চলছে কোটালীপাড়ায় আওয়ামী লীগ

৭:১৪ অপরাহ্ন | শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৬ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মেহেদী হাসানাত, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় দু’সদস্যের কমিটি দিয়ে চলছে উপজেলা আওয়ামী লীগের কর্মকান্ড। সম্মেলনের প্রায় ১ বছর পেরিয়ে গেলও পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন না করায় নেতা-কর্মীদের মাঝে দেখা দিয়েছে ক্ষোভ ও হতাশা।

aligজানাগেছে, দীর্ঘ ১২ বছর পরে গত বছরের ৮ নভেম্বর কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এই সম্মেলনকে ঘিরে গোটা উপজেলায় দলীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে দেখা গিয়ে ছিলো বাঁধ ভাঙা আনন্দ। তবে এ আনন্দ বেশী দিন টেকেনি। সম্মেলন থেকে ১ সপ্তাহের মধ্যে পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের ঘোষণা দেয়া হলেও এখন পর্যন্ত পুর্ণাঙ্গ কমিটি করা হয়নি। আর এ কারণেই দলীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্ঠি হয়েছে।

বিগত কমিটির সভাপতি এডভোকেট সুভাষ জয়ধর ও সাধারণ সম্পাদক এস এম হুমায়ুন কবীরকে সম্মেলন থেকে পুনরায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা করা হয়। আর এ সম্মেলনের সময়ে সুভাষ জয়ধর ও এস এম হুমায়ুন কবীর ছাড়া বাকী যে সব নেতা সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদ পাওয়ার আশায় গ্রুপিং-লবিং করেছিল তারা এখন হতাশায় ভুগছে। অপরদিকে পুর্ণাঙ্গ গঠন না করার অভাবে দলীয় কর্মকান্ড ঝিমিয়ে পড়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিগত সম্মেলনের একজন সভাপতি প্রার্থী বলেন,উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হবার আশায় ১ যুগ ধরে রাজনীতির মাঠে ময়দানে কাজ করেছি। কিন্তু আমার সে আশা পূরণ হয়নি। এখন শুনছি আমাদের মতো সিনিয়র নেতাদের উপদেষ্টা করে উপজেলা কমিটি গঠন করা হবে। যদি তাই করা হয়, তা হলে আমি মনে করবো এখানে কাজের প্রকৃত মূল্যায়ন করা হয় না।

রাধাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সর্বানন্দ বৈদ্য বলেন, বিগত ৮ বছর ধরে রাধাগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দলীয় কর্মকান্ডে অংশ গ্রহন করে আসছি। আশা করছি উপজেলা কমিটি পুর্ণাঙ্গ হলে একটি পদ পাবো। সম্মেলনের পর দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও অদৃশ্য কারণে এখন পর্যন্ত কমিটি হয়নি। এ জন্য আমরা হতাশ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ আয়নাল হোসেন বলেন, প্রায় ১ বছর আগে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়েছে। এ সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নাম ঘোষণা করা হয়। এই ১ বছর ধরে দু’সদস্য বিশিষ্ট কমিটি থাকায় দলীয় কর্মকান্ড ঝিমিয়ে পড়েছে। আমি দ্রুত পুর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করার দাবী জানাচ্ছি।

কুশলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা কামরুল ইসলাম বাদল বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দলের পিছনে শ্রম দিয়েছি উপজেলা কমিটিতে একটি পদের আশায়। আশাকরি পুর্ণাঙ্গ কমিটি হলে দল মূল্যায়ণ করবে। তবে এ উপজেলায় কমিটিতে পদ পাওয়া না পাওয়ার বিষয়টি নির্ভর করে জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর। সে ক্ষেত্রে আমি পদ না পেলেও খুশি।

দু’সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এস এম হুমায়ুন কবীর বলেন, শীঘ্রই আমাদের কমিটি পুর্ণাঙ্গ করা হবে। আমরা বিগত কমিটির সকল সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে দলীয় কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছি।