• আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

প্রকাশ্য সভায় প্রথমবারের মত এবার পাকিস্তানকে যে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন মোদি!


❏ রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৬ আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক - ভারতের সঙ্গে পাকিস্তানের যুদ্ধ যুদ্ধ উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর মধ্যে কেরালায় গিয়ে পাকিস্তানকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। উরির সেনাঘাঁটিতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পর এটাই মোদির প্রথম প্রকাশ্য সভা।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পক্ষান্তরে জানিয়ে দিলেন, সন্ত্রাসী রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে তার দেশ হাজার বছরব্যাপী যুদ্ধের চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত।

কাশ্মীরের উরি সেনাঘাঁটিতে হামলা নিয়ে প্রথমবার মুখ খুলে পাকিস্তানকে একহাত নিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছেন, উরি হামলায় সেনাদের আত্মদান বৃথা যাবে না।

মোদি আরো বলেন, আন্তর্জাতিক অঙ্গন থেকে পাকিস্তানকে বিচ্ছিন্ন করতে সব ধরনের উদ্যোগ নেবে ভারত।

পাকিস্তানকে উদ্দেশ করে মোদি বলেন, একটি দেশ এশিয়াকে রক্তপাত ও সন্ত্রাসী অঞ্চল বানাতে চাইছে। কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের নেতারা সন্ত্রাসী হোতাদের হাতে তৈরি বক্তব্য পাঠ করছেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের এক খবরে রোববার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

শনিবার কেরালা রাজ্যের কোঝিকোদে এক সমাবেশে বক্তব্য দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী মোদি পাকিস্তানকে কড়া ভাষায় হুঁশিয়ার করেন। তিনি বারবার উল্লেখ করেন, উরি সেনাঘাঁটির হামলার কথা ভারত কখনো ভুলবে না। দেশের জন্য যারা মারা গেছেন, তাদের আত্মত্যাগকে মনে রাখবে জাতি।

modi

পাকিস্তানের উদ্দেশে মোদি বলেন, ‘আমরা শিগগির আপনাদের বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন করব। আপনাদের একঘরে করে রাখব... সন্ত্রাসীরা পরিষ্কারভাবে জানুক, ভারত কখনো উরির ঘটনা ভুলবে না... ভারত কখনো সন্ত্রাসের সামনে মাথা নথ করেনি, এখনো করবে না।’

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে সরাসরি কিছু বলেননি মোদি। তবে তিনি অভিযোগ করেছেন, সন্ত্রাস গ্রাস করেছে পাকিস্তান ও প্রধানমন্ত্রী নওয়াজকে। তিনি বলেন, বিশ্বের কেউ বিশ্বাস করেন না, পাকিস্তানের বর্তমান শাসনকাঠামো সে দেশ থেকে সন্ত্রাসী রপ্তানি বন্ধ করতে সক্ষম।

পাকিস্তানের সমাজ, রাজনীতি ও অর্থনীতি নিয়ে সমালোচনা করেন মোদি। তিনি বলেন, ভারত সফটওয়্যার রপ্তানি করে, আর পাকিস্তান করে সন্ত্রাস রপ্তানি- এই হলো পার্থক্য।

ভারত শাসিত কাশ্মীরের উরি সেনাঘাঁটিতে পাকিস্তান থেকে অনুপ্রবেশকারী সন্ত্রাসীদের হামলা, কাশ্মীরের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে জাতিসংঘে নওয়াজ শরিফের অভিযোগ এবং দুই দেশের মন্ত্রী ও কূটনীতিকদের মধ্যে কথা চালাচালির পর ভারতের অবস্থান পরিষ্কার করলেন মোদি।

উরির ঘটনার প্রেক্ষাপটে প্রতিবেশী দেশকে কাঠগড়ায় তুলে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,

# সন্ত্রাসবাদ মানেই পাকিস্তান।

# পাকিস্তান সন্ত্রাস রপ্তানি করে।

# বিশ্বের যেখানেই সন্ত্রাস, সেখানেই নাম ওঠে পাকিস্তানের।

#ওসামা বিন লাদেনকেও আশ্রয় দিয়েছিল পাকিস্তান।

# এশিয়াতে ওরাই একমাত্র দেশ যারা সন্ত্রাসে মদত দেয়।

# বিশ্বজুড়ে রক্ত ঝরাচ্ছে একটাই দেশ।

# উরিতে জওয়ানদের মৃত্যু কখনই ভুলব না।

# ভারত তার জওয়ানদের নিয়ে গর্বিত।

# সম্প্রতি ১১০ জন জঙ্গিকে মেরেছে সেনারা।

# সন্ত্রাসবাদীদের লেখা ভাষণ পাঠ করছেন, নাম না করে নওয়াজ শরিফকে কটাক্ষ।

# সন্ত্রাসের সামনে কখনই মাথা নত করেনি, করবেও না ভারত।

# এশিয়ার যেখানেই কোনো দেশ সন্ত্রাসের শিকার হচ্ছে, তারা দুষছে একটিই দেশকে।

# এশিয়ার সব দেশ ২১ শতককে এশিয়াক ২১ শতক বানিয়ে তুলতে বদ্ধপরিকর, ব্যতিক্রম একটিই দেশ।

# আগে নিজের এলাকা সামলান, আগে বালুচিস্তান, গিলগিট সামলান, তারপর কাশ্মীর নিয়ে কথা বলবেন, শরিফকে বার্তা।

# গরিবি, বেকারি দূর করার লড়াইয়ে নামুন ভারতের সঙ্গে। দেখা যাক, কে আগে গরিবি, বেকারি ঘোচাতে পারে, ভারত না পাকিস্তান। চ্যালেঞ্জ করছি।