🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

আমাদের মা’কে বাঁচান


❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৬ দেশের খবর, রংপুর

ফয়সাল শামীম, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: আমাদের মায়ের খুব অসুখ। মা সারাদিন আমাদের বুকে নিয়ে খালি কাঁদে, কিছু খায় না কারও সাথে কথা বলেনা’ আমাদের মাকে আপনারা বাঁচান। আপনাদের পায়ে পড়ি আমাদের মাকে বাঁচান। অঝোরে কাঁদতে কাঁদতে কথাগুলি বলছিলেন স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত খোতেজা বেগমের তিন সন্তান রিয়াজুল (১৫), সেলিম (৯) ও মুন্নি (৭)। খোতেজার বাড়ী কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের বড়মানী কুড়ারপাড় গ্রামে। খোতেজার স্বামী মজিবর রহমান (রফিকুল) রং মিস্তির কাজ করে কোন রকমে সংসার চালান।

make-bacan

অভাব অনটনের সংসারে প্রায় ১ বছর আগে স্তন ক্যান্সার রোগ বাসা বাঁধে খোতেজার শরীরে। সুদের উপর টাকা নিয়ে খোতেজাকে রংপুরে নবজীবন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। এরপর নবজীবন ক্লিনিকে বাম স্তনে অপারেশন করে বাম স্তনটি পুরো কেটে ফেলে দেয়া হয়। এর পর ঘটতে থাকে বিপত্তি অপারেশনের ওই জায়গা শুকোতে বেশ সময় লাগে। পরে শেষ সম্বল ভিটেটুকু বিক্রি করে পুণরায় রংপুরে যায় খোতেজা। পূনরায় পরীক্ষা নিরিক্ষার পর ডাক্তার জানিয়ে দেন ক্যান্সারটি এক জায়গায় স্থীর আছে সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়ার আগে দ্রুত ঢাকায় অথবা মাদ্রাজ (ইন্ডিয়া) যাওয়ার পরামর্শ দেন ডাক্তার। এবং জানিয়ে দেন এ চিকিৎসায় প্রায় ২ লক্ষ টাকা লাগবে। ক্যান্সারে মৃত্যু অবধারিত জেনে মুশড়ে পড়েন খোতেজা। কোন উপায় না পেয়ে মানুষের দাড়ে দাড়ে বাঁচার জন্য ছুটে বেড়াচ্ছে খোতেজা। খোতেজার সাথে কথা হলে তিনি এ প্রতিনিধিকে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে বলেন’ মোক তোমরা বাঁচান! মুই মরলে মোর অবুঝ ছওয়াগুলাক (সন্তান) দেখবে কাই??

প্রতিবেদকের বক্তব্যঃ মা ও সন্তানদের হৃদয়বিদারক করুণ আকুতি শুনে আমি নিজে আগামীকাল মঙ্গলবার ২৭/৯/১৬ ইং খোতেজাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ঢাকায় জাতীয় ক্যান্সার গবেষন হাসপাতালে প্রথমে খোতেজার দেহের মাংসের ১ টি ব্যায়বহুল পরীক্ষা করতে হবে। তার পর রোগের অবস্থান বোঝা গেলে খোতেজাকে বাঁচাতে দ্রুত শুরু করতে হবে চিকিৎসা। তাই সমাজের হৃদয়বান ও বৃত্তবান মানুষদের তিনটি শিশুর মাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসার জন্য বিনীত আহ্বান জানাচ্ছি।

বিস্তারিত তথ্য ও সহযোগিতার জন্য আমাদের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ফয়সাল শামীম - ০১৭১৩২০০০৯১