• আজ শনিবার, ১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৫ মে, ২০২১ ৷

‘ভারতের সঙ্গে ইতিবাচক ও গঠনমূলক ভূমিকা পালন করবে পাকিস্তান’


❏ সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৬ আন্তর্জাতিক, স্পট লাইট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ভারতের সঙ্গে ভবিষ্যৎ সম্পর্কের বিষয়ে পাকিস্তান ইতিবাচক ও গঠনমূলক ভূমিকা পালন করবে বলে জানিয়েছেন নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত দেশটির হাইকমিশনার আবদুল বাসিত। তার মতে, উভয় দেশের অভিজ্ঞ নেতারা আলোচনার মাধ্যমে চলমান সংকট থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হবেন।

sharif_modi_26029_1474879989স্থানীয় সময় রোববার ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য টেলিগ্রাফে প্রকাশিত এক সাক্ষাৎকারে হাইকমিশনার এসব কথা বলেছেন বলে সোমবার পাকিস্তানের পত্রিকা ডন খবর দিয়েছে।

আবদুল বাসিত বলেন, ‘জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে দেয়া ভাষণে আমাদের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ বলেছেন- পাকিস্তান বরাবরই ভারতের সঙ্গে স্বাভাবিক, সহযোগিতামূলক সম্পর্ক চায়। উভয় দেশের সমস্যাগুলোর সমাধান শান্তিপূর্ণভাবেই আশা করে পাকিস্তান।’

গত ১৮ সেপ্টেম্বর কাশ্মীরের উরিতে ১৮ জন ভারতীয় সেনা নিহতের ঘটনার ব্যাপারে পাকিস্তানের সম্পৃক্ততার অভিযোগের বিষয়ে হাইকমিশনার বলেন, ভারতের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এখনও ওই হামলার বিষয়ে তদন্ত চালাচ্ছে।

তদন্ত সম্পন্ন হওয়ার আগে উরি হামলার জন্য পাকিস্তানকে দায়ী করার বিষয়ে আবদুল বাসিত বলেন, ‘আমি বিনয়ের সঙ্গে বলতে চাই, এভাবে কোনো সমস্যার সমাধান হবে না।’ তিনি বলেন, ‘আমরা সবাই দেখেছি যে, পাঠানকোটের ঘটনার পর পাকিস্তান কীভাবে সহযোগিতা করেছিল। ওই ঘটনায় তদন্তসহ সবকিছুই ঠিকভাবে এগিয়েছিল। আমরা যদি ওই ঘটনার বিষয়ে অনুসৃত নীতি মেনে চলি, এবারও পরিস্থিতি শোচনীয় হওয়া রোধ করা সম্ভব হবে বলে আমি আত্মবিশ্বাসী।’

চলমান উত্তেজনার মধ্যে দু’দেশের সম্পর্কের বিষয়ে পাকিস্তানি হাইকমিশনার বলেন, ‘আমি একজন কূটনীতিক এবং কূটনৈতিক উপায়েই জয়ী হতে পছন্দ করি। আমি মনে করি, দু’দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে আমি মনে করি না।’

তিনি বলেন, ভারতসহ বিশ্বের কোনো দেশেই সন্ত্রাসী তৎপরতার চলার ব্যাপারে নিজেদের ভূমিকাকে ব্যবহার করতে না দেয়ার ব্যাপারে পাকিস্তান প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে বিদ্যমান সম্পর্ক ধীরগতিতে হলেও ঠিকমতোই এগোচ্ছিল বলে জানান আবদুল বাসিত।

তার মতে, গত ৮ জুলাই কাশ্মীরে ভারতীয় বাহিনীর হাতে হিজবুল মুজাহেদিন কমান্ডার বোরহান ওয়ানি নিহত হওয়ার ঘটনায় পরিস্থিতি বদলে যায়। বোরহান নিহত হওয়ার ঘটনার মধ্য দিয়ে দু’দেশের সম্পর্কের যে গতি হারিয়ে গেছে, তা পুনরুদ্ধার করাই ভারত-পাকিস্তানের কূটনীতিকদের জন্য চ্যালেঞ্জ বলেও মন্তব্য করেন আবদুল বাসিত।