সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

গ্রাহকদের বাঁধা উপেক্ষা করে বৈদ্যুতিক ট্রান্স মিটার স্থাপন, যে কোন সময় প্রান নাশের আশংকা

৪:২৭ অপরাহ্ন | সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৬ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালী সুবর্ণচর উপজেলার ২নং চরবাটা ইউনিয়নের মধ্য চরবাটা গ্রামে লক্ষ্মী রানী মজুমদার বাড়ীতে বৈদ্যুতিক ট্রান্স মিটার স্থাপনকে কেন্দ্র করে বিদ্যুৎ কর্মীদের মধ্যে দপায় দপায় চলছে সংঘর্ষ। প্রান নাশের হুমকিতে রয়েছে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকাবাসী। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ১ মাস আগে উক্ত গ্রামে লক্ষী রানী মজুমদারের বাড়ীতে বৈদ্যুতিক খুটি স্থাপন করা হয়। কয়েকদিন পর ঐ খুটিতে ট্রান্স মিটার স্থাপনকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসী ও বিদ্যুৎ কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

mitar

ঐ বাড়ীতে রয়েছে প্রায় ৫টি পরিবার আশেপাশে রয়েছে আরোও ২০টি পরিবার ঘন ঘন লোড শেডিংয়ের কারণে নোয়াখালী বিভিন্ন জায়গায় ট্রান্স মিটার বিষ্পোরন ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তাই ট্রান্স মিটারটি ঐ খুটি থেকে কিছু দুরে অথবা অন্য খুটিতে পরিবর্তন করার জন্য নোয়াখালী জজ কোর্ট এর এডভোকেট সারওয়ার উদ্দিন দিদারের মাধ্যমে নোয়াখালী সোনাপুর পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিস ডেপুটি ম্যানেজার বরাবর একটি লিগ্যাল নোটিশ প্রেরন করে এতে কোন সুফল না হওয়ায় ঐ এলাকায় চলছে চরম উত্তেজনা। এবং যে কোন সময় রক্ত ক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে।

এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, একটি ঘনবসতি পূর্ণ এলাকায় ৩৩ হাজার বোল্ট এর বৈদ্যুতিক ট্রান্স মিটার স্থাপন যে কোন সময় প্রান নাশ ঘটাতে পারে। তাই অতিসত্তর ঝুঁকিপূর্ণ ট্রান্স মিটারটি অন্যত্র সরিয়ে নিতে নোয়াখালী জোনাল বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তা বিদ্যুৎ মন্ত্রনালয় ও স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ ও সু দৃষ্টি কামনা করেছেন।