যে কাজগুলো করলে আপনার বয়স ১০ বছর কম মনে হবে!

⏱ | সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৬ 📁 লাইফস্টাইল

বয়সের ছাপ দূর করুন

আফসানা নিশি, লাইফস্টাইল কন্ট্রিবিউটার, সময়ের কণ্ঠস্বর। সকলে চায় নিজেকে সুন্দর দেখাতে। সবার সৌন্দর্যের কিছু গোপন কারণ থাকে। কেউ চায় না তার সৌন্দর্য রহস্য জেনে অন্য মানুষ সুন্দর হোক। কিন্তু আপনি যদি নিজে নিয়ম মেনে কিছু কাজ করেন তবে হয়ে উঠবেন সৌন্দর্যের আধার। ১০ বছর কম বয়স্ক লাগবে নিজের বয়সের তুলনায়। তাহলে জেনে নিন বয়স কম করে ফেলার উপায়।

 ১।নিয়মিত ত্বক পরিচর্চা: মুখ হচ্ছে সৌন্দর্যের আসল স্থান। কথায় বলে সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র। বয়সের কারণে ত্বক কুচকে যায়,মুখে বলিরেখা হয়,চোখের নিচে কালো দাগ হয়,মেসতা হয়,আরো কতো সমস্যা। কিন্তু একটু যত্ন নিলে এসব সমস্যা থেকে ত্বককে রক্ষা করতে পারেন। বয়স্ক ত্বককেও করতে পারেন পুণরায় উদজীবিত। সঠিক পরিচর্চা আপনার ত্বককে দিতে পারে মস্চারাইজ যা ত্বককে করবে কোমল ও উজ্জল। নিজের ত্বক বুঝে মেকআপ ব্যবহার করুন।কখনও মেয়াদ উত্তির্ণ হওয়া পণ্য ব্যবহার করবেন না।

২।সূর্যরশ্মি থেকে দূরে থাকুন: আপনার সৌন্দর্য নষ্ট করার সব থেকে বড় কারণ সূর্যতাপ। এটি আপনার ত্বক কালো করে,ত্বকে বলিরেখা সৃষ্টি করে। এমনি ত্বকে ক্যান্সার সৃষ্টির সব থেকে বড় কারণ সূর্যরশ্মি। তাই অবশ্যই বাইরে যাওয়ার আগে স্কার্ফ,সানগ্লাস ব্যবহার করুন।সম্ভব হলে একটি ছাতা রাখুন সঙ্গে।

৩।পর্যাপ্ত ঘুম: সঠিক ঘুম মানুষকে সুস্থতা দান করে। সঠিক খুব মানুষের হার্ট ভাল রাখে ও স্মৃতি শক্তি বৃদ্ধি করে। পর্যাপ্ত ঘুমের অভাবে চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে ও ত্বকের উজ্জলতা নষ্ট হয়।  রাতে পর্যাপ্ত ও নিশ্চিন্ত ঘুমের জন্য ঘুমাতে যাওয়ার আগে ১০ মিনিট গান শুনুন।

৪।পুষ্টি কর খাদ্য তালিকা: মানুষ এখন বেশি স্বাস্থ্য সচেতন। ওজন নিয়ন্ত্রণের জন্য সবাই বেঁচে নিয়েছে ডায়েট চার্ট। কিন্তু এই ডায়েট চার্ট যেনো আপনার বয়স বৃদ্ধির কারন না হয় সেদিকে নজর রাখার দায়িত্ব আপনার। অনেকে ওজন কমাতে গিয়ে খাদ্য তালিকা থেকে পুষ্টিকর খাবারগুলো বাদ দিয়ে দিচ্ছে ফলে ওজন কমছে ঠিকই কিন্তু শরীর হয়ে যাচ্ছে দুর্বল। ত্বকের উজ্জলতা কমে যাচ্ছে,ত্বক কুচকে যাচ্ছে,হাড় দুর্বল হয়ে হচ্ছে। তাই অবশ্যই প্রতিদিনের খাবারে প্রয়োজন মতো পুষ্টি রাখা জরুরি। পুষ্টিকর খাবার নিজেকে সুন্দর রাখার উৎকৃষ্ট পন্থা।

৫।রোজ সকালে হাটা: সকালের বাতাস মানুষের শরীরের জন্য অনেক উপকারি। বিশেষ করে যাদের হার্টের সমস্যা আছে তাদের জন্য। সকালে প্রাণ খুলে অক্সিজেন গ্রহণ করলে তা হার্ট সুস্থ রাখে ও ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করে। মানুষের শরীরে অক্সিজেন কমে গেলে ত্বক আস্তে আস্তে কালো হয়ে যায়। রোজ সকালে ৩০ মিনিট হাটলে বাড়তি ওজন কমে,ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে,মনসিকতা সুস্থ থাকে,ত্বক উজ্জল হয় ও মেজাজ ফুরফুরে করে যা মানুষের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

৬।নেশা ও ধুমপান থেকে বিরত থাকুন: মানুষ সকল প্রকার জটিল রোগের সুত্র হচ্ছে নেশা ও ধুমপান। যারা নেশা করে তারা মরণব্যাধি রোগে বেশি আক্রান্ত হয়। গবেষণায় দেখা গেছে ফুসফুস,লিভার ও হার্টের দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত ৫০% ব্যক্তি নেশা গ্রস্থ যারা মধ্যে ৪৫% লোক লিভার ও ফুসফুস ক্যান্সারের আক্রান্ত। তাছাড়া যারা সামান্য নেশা ও ধুমপান করে তাদের চেহারায় বয়সের ছাপ পড়ে,চোখ কালো হয়ে যায়,মুখের চামড়া কুচকে যায়,ঠোঁট কালো হয়। যা দেখে মনে হয় বয়স বৃদ্ধি পেয়েছে।

৭। শখের কাজ করুন: প্রতিটি মানুষের শখের কিছু না কিছু কাজ থাকে। কেউ পছন্দ করে ছবি আঁকতে,কেউ গান গায়তে,কেউ বই পড়তে আবার কেউ বাগান করতে। মানুষ যদি তার শখের কাজটা করতে পারে তবে মানসিক ভাবে সে অনেক সুস্থ্য থাকে যা তার চেহারা থেকে বয়সের ছাপ দূর করে ও তাকে তরুন দেখায়। তাই নিজের চেহারা থেকে বয়সের ছাপ দূর করতে হলে অবশ্যই শখের কাজটিতে মনোনিবেশ করুন।

৮।ইতিবাচক চিন্তা করুন: সব সময় ইতিবাচক চিন্তা করলে মানুষ শারীরিক ও মানসিক দুভাবে সুস্থ থাকে। গবেষণায় দেখা গেছে মানুষ যখন মানসিক ভাবে সুস্থ থাকে তখন শারীরিক অসুখ কম হয়। আর সুস্থ মানুষকে সব সময় তরুন ও সুন্দর দেখায়। ইতিবাচক চিন্তা মানুষকে যে কোন কঠিন কাজ ও সময়ের মুখমুখি হতে সাহস যোগায়। নেতিবাচক চিন্তাকারি ব্যক্তি সব সময় হীনমন্যতায় ভোগে ও মানসিক ভাবে বয়স্ক হয়ে যায়। এই মানসিক বয়স্কতা তার চেহারায়ও বয়সের ছাপ ফেলে।