🕓 সংবাদ শিরোনাম

খেলার আগে মাঠে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ালেন কুড়িগ্রামের ক্রিকেটারেরাপাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হলো প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামকেকর্মস্থলে ফিরতে গাদাগাদি করে রাজধানীমুখী লাখো মানুষশেরপুরে পৃথক ঘটনায় একদিনে ৭ জনের মৃত্যুএক বিয়ে করে দ্বিতীয় বিয়ের জন্যে বড়যাত্রীসহ খুলনা গেল যুবক!আমার মৃত্যুর জন্য রনি দায়ী! চিরকুট লিখে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যাইসরাইলীয় আগ্রাসনের  বিরুদ্ধে ইসলামী বিশ্বের নিন্দার নেতৃত্বে সৌদি আরবত্রিশালে সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যুতে নিহতের বাড়ীতে চলছে শোকের মাতমকলাপাড়ায় এক সন্তানের জননীর মরদেহ উদ্ধারটাঙ্গাইলে কৃষক শুকুর মাহমুদ হত্যা মামলায় গ্রেফতার-১

  • আজ মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ ৷ ১৮ মে, ২০২১ ৷

শহীদ মিনারে সৈয়দ শামসুল হককে রাষ্ট্রপতির শ্রদ্ধা


❏ বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৬ Breaking News, ফিচার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সময়ের কণ্ঠস্বর- সব্যসাচী লেখক, কথাসাহিত্যিক ও কবি সৈয়দ শামসুল হকের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ। বুধবার বেলা ১১টা ২৪ মিনিটে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ শহীদ মিনারে উপস্থিত হয়ে কবিকে শ্রদ্ধা জানান।

ছবি; সংগ্রহীত

ছবি; সংগ্রহীত

রাষ্ট্রপতির পর প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তাঁর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিল কবির প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করেন। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানোর পর সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ সর্বস্তরের জনগণ কবির প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

এসময় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, পেশাজীবী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বসহ সর্বস্তরের জন্য একে একে কবির প্রতি শ্রদ্ধা জানান। দুপুর ১টা পর্যন্ত শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য কবির মরদেহ রাখা হবে।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সৈয়দ হককে নেওয়া হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় জামে মসজিদে। জানাজার পর তাঁকে হেলিকপ্টারে করে নিয়ে যাওয়া হবে জন্মস্থান কুড়িগ্রামে। সেখানে সরকারি কলেজ মাঠের পাশে কবির নির্ধারণ করে দেওয়া স্থানেই তাঁকে দাফন করা হবে।

এর আগে বেলা ১১টা ৯ মিনিটে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সৈয়দ হকের মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স এসে পৌঁছায়। এর আগে তেজগাঁও চ্যানেল আই’র প্রাঙ্গণে সৈয়দ হকের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে নেওয়া পৌনে ১১টায় বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে নেওয়া হয় তার মরদেহ।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন সৈয়দ শামসুল হক। তিনি ফুসফুসের ক্যানসারে ভুগছিলেন। সৈয়দ হকের বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তিনি স্ত্রী আনোয়ারা সৈয়দ হক এবং এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন।

সৈয়দ শামসুল হকের জন্ম কুড়িগ্রামে, ১৯৩৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর। কবিতা রচনার মধ্য দিয়ে তার সাহিত্য জীবনের শুরু; এরপর গল্প, উপন্যাস, কাব্যনাট্য, প্রবন্ধ, শিশুসাহিত্য, অনুবাদ, স্মৃতি, ভ্রমণ, চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য ও সঙ্গীত রচনাসহ সাহিত্যের এমন কোনো শাখা নেই যেখানে সৈয়দ শামসুল হক তার অসামান্য মেধা ও মননের স্পর্শ রাখেননি। ১৯৫৮ সালে ১৮ বছর বয়সে ‘একদা এক রাজ্যে’ তার প্রথম প্রকাশিত কাব্য। এরপর একটানা ৬০ বছর ধারাবাহিকভাবে তার কমপক্ষে ৩ শতাধিক গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। সাহিত্য রচনাকেই তিনি জীবনের একমাত্র কাজ হিসেবে গ্রহণ করেন। সৈয়দ হক স্বাধীনতা পুরস্কার, একুশে পদকসহ, দেশের সব গুরুত্বপূর্ণ সম্মাননায় ভূষিত।